আইসিসি টি২০ বিশ্বকাপ ক্রিকেট ২০২৪ সমীক্ষা

সালেক সুফী

পাঁচ দলের চার গ্রুপে বিভক্ত হয়ে ২০ দলের আইসিসি টি২০ বিশ্বকাপ ক্রিকেট চ্যাম্পিয়নশিপ ২০২৪ এখন দুয়ারে কড়া নাড়ছে। যুক্তরাষ্ট্রের ডালাসে অন্যতম স্বাগতিক যুক্তরাষ্ট্র এবং প্রতিবেশী কানাডার মধ্যে অনুষ্ঠিত খেলা দিয়েই সূচিত হবে বিশ্বকাপের জমজমাট আসর। চার গ্রূপ থেকে ২টি শীর্ষস্থানীয় দল গ্রুপ অফ এইটে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে। টি২০ ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ততম তাৎক্ষণিক ভার্সন। অন্তত ৫-৬ দলের সমান সম্ভাবনা আছে এবারের বিশ্বকাপ জয় করে নেওয়ার। তবে আইসিসি এসোসিয়েটস দুই একটি দল গ্রূপ পর্যায়ে বিস্ময়ের সৃষ্টি করে কোনো ফেভারিট দলকে ছিটকে দিতে পারে।

গ্রুপ এ: ভারত, পাকিস্তান, যুক্তরাষ্ট্র, আয়ারল্যান্ড, কানাডা

গ্রুপ বি: অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, স্কটল্যান্ড, নামিবিয়া, ওমান

গ্রুপ সি: নিউ জিল্যান্ড, আফগানিস্তান, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, পাপুয়া নিউগিনি, উগান্ডা

গ্রুপ ডি: দক্ষিণ আফ্রিকা, বাংলাদেশ, শ্রীলংকা, নেপাল, নেদারল্যান্ডস।

যুক্তরাষ্ট্র এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজ এবারের বিশ্বকাপের যৌথ স্বাগতিক দেশ। টি২০ ক্রিকেট ফ্রাঞ্চাইজের রমরমা সময়ে প্রথাগত ক্রিকেটের সংজ্ঞা পাল্টে যেতে শুরু করেছে। মারকুটে ব্যাটসম্যানদের দাপটে বোলারদের কোণঠাসা অবস্থান। চলমান আইপিএল ২০২৪ এ নিয়মিত ২৩০-২৫০ রান হয়েছে। এই রান তাড়া করেও ম্যাচ জয় হয়েছে।

যদিও যুক্তরাষ্ট্র এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজের উইকেটগুলো অপেক্ষাকৃত ধীর এবং স্পিন সহায়ক হওয়ার সম্ভাবনা তবে সাধারণভাবে ধরে নেওয়া যায় ভারত, অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড এবং স্বাগতিক ওয়েস্ট ইন্ডিজের সুযোগ থাকবে ফেভরিট হিসাবে। তবে পাকিস্তান, দক্ষিণ আফ্রিকা, নিউ জিল্যান্ড, শ্রীলংকা এবং বাংলাদেশ দ্বিতীয় রাউন্ডে চমক জাগিয়ে সমীকরণ উলট পালট করে দিতে পারে।

সবকিছু স্বাভাবিক থাকলে গ্রুপ এ থেকে ভারত এবং পাকিস্তান দ্বিতীয় রাউন্ডে এগিয়ে যাবার কথা। কিন্তু দুটি দলের ক্ষেত্রেই বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারে আয়ারল্যান্ড।কানাডা এবং যুক্তরাষ্ট্র মনে হয় না প্রতিদ্বন্দ্বিতায় টিকে থাকতে পারবে। তবে টি২০ ক্রিকেট অনেকটা জুয়া খেলার মতো।  অঘটন ঘটে যেতেই পারে।

গ্রুপ বি থেকে থেকে আমি অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ডের এগিয়ে যাওয়ার পথে বাধা দেখি না। একমাত্র বাধা হতে পারে স্কটল্যান্ড। অস্ট্রেলিয়া কিন্তু এখন ক্রিকেটের সকল ফরম্যাটে চ্যাম্পিয়ন দল। এবারের দলেও রয়েছে তুখোড় ব্যাটসম্যান, আক্রমণাত্মক বোলার। যে কোনো দলকেই অস্ট্রেলিয়াকে হারাতে বেগ পেতে হবে। ইংল্যান্ড দল টুর্নামেন্টের অন্যতম ফেভারিট। কিন্তু প্রতিবেশী স্কটল্যান্ডের সঙ্গে ওদের হোঁচট খাওয়ার সম্ভাবনা আছে।

গ্রূপ সি থেকে পরবর্তী রাউন্ডে ওঠার জন্য নিউ জিল্যান্ড, আফগানিস্তান, ওয়েস্ট ইন্ডিজের মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে। স্বাগতিক হিসাবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ কিছুটা এগিয়ে থাকলেও আফগানিস্তান এবং নিউ জিল্যান্ড অনেক শক্তিশালী দল। গ্রূপ ডি তে প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে দক্ষিণ আফ্রিকা, বাংলাদেশ এবং শ্রীলংকার মধ্যে। নেপাল এবং নেদারল্যান্ডস একেবারে হেলাফেলার দল না।

আমার পর্যালোচনায় আমি দ্বিতীয় রাউন্ডে যে আট দলকে দেখতে পাচ্ছি সেগুলো হতে পারে: ভারত, পাকিস্তান, অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, আফগানিস্তান, শ্রীলংকা এবং বাংলাদেশ।আমার এই পর্যালোচনার ভিত্তি হিসাবে আমি পর্যায়ক্রমে বিশ্লেষণ করবো পরবর্তী প্রতিবেদনগুলোতে।

এবারের টুর্নামেন্টে অনেকেই অস্ট্রেলিয়া-ভারতকে এগিয়ে রাখছেন। আমার বিবেচনায় পাকিস্তান এবং ইংল্যান্ড হিসাব নিকাশ পাল্টে দিতে পারে। আশা করি বৃষ্টি বা অন্য কোনো কারণে খেলাগুলো বিঘ্নিত হবে না। ক্রিকেটের ডিস্কো ফরমেট সবাইকে অনাবিল আনন্দ দিবে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

8 + three =