ইউক্রেনীয় মডেল বিয়ের প্রস্তাব পাচ্ছেন অহরহ

যুদ্ধবিধ্বস্ত ইউক্রেনের এক মডেলের কাছে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে অনবরত এসেই চলেছে বিয়ের প্রস্তাব। তার পাণিপ্রার্থীদের মধ্যে ব্রাজিল, আমেরিকা, ইউরোপ, আরব, স্পেনের পুরুষেরা তো আছেনই, এমনকি শত্রুদেশ রাশিয়ারও কয়েকজন আছেন।

ইউক্রেন এখন যথাসর্বস্ব দিয়ে রাশিয়াকে ঠেকাতে ব্যস্ত। রোজই শতশত ইউক্রেনীয় তরুণ দেশের সেনাবাহিনীতে যোগ দিচ্ছেন। ইউক্রেনের মডেল জানিয়েছেন, তার পাণিপ্রার্থীরা প্রত্যেকেই জানিয়েছেন, তারা যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশটি থেকে তাকে বের করে আনতে চান।

ইউক্রেনের মডেলিং দুনিয়ায় তারকা লুইসা খোভানস্কি। তার অনুগামীরা বলেন, লুইসার ঢেউ তোলা শরীরই তার জনপ্রিয়তার কারণ। আমেরিকার সুপার মডেল কিম কার্দাশিয়ানের সঙ্গে তুলনা করা হয় লুইসার। যদিও তার ভক্তদের দাবি, লুইসা তার আবেদনে কিমকেও টেক্কা দেন!

যুদ্ধের জন্য ইউক্রেনের বিনোদন দুনিয়ার কাজ প্রায় বন্ধ। মডেলিংয়ের কাজ নেই লুইসার হাতেও। এখন তিনি দেশের পরিস্থিতির খবর রাখেন। প্রয়োজন মতো সাহায্যও পাঠান সেনা বাহিনীর জন্য।

মডেলিংয়ের কাজ বন্ধ থাকলেও উপার্জন বন্ধ হয়নি লুইসার। ইউক্রেনের এই মডেল একজন পেশাদার গেম ডেভলপার। ভিডিও গেম তৈরি করেন। তা থেকে নিয়মিত উপার্জনও করেন লুইসা। তবে তবে তার আয়ের সিংহভাগই আসে তার ‘বিশেষ ভক্ত’দের দৌলতে।

‘অনলি ফ্যানস’-এর মতো চাঁদার বিনিময়ে সদস্য হওয়া যায় যে সমস্ত প্রাপ্তবয়স্ক ওয়েবসাইটে, সেখানে নিজের ছবি এবং ভিডিও পোস্ট করেন এই ইউক্রেনীয় মডেল।

ওই ধরনের ওয়েবসাইটে বিপুল ভক্তকূল লুইসার। ওই ওয়েবসাইট থেকে প্রতি মাসে ৫০ হাজার পাউন্ড (প্রায় ৫০ লাখ টাকা) উপার্জন করেন তিনি।

কিন্তু এই সমস্ত ওয়েবসাইটে যেতে ইদানীং অত্যন্ত বিব্রত বোধ করছেন লুইসা। তিনি জানিয়েছেন, তাকে রোজই বিয়ের প্রস্তাব দিচ্ছেন অনুরাগীরা। তাকে রাজি করানোর জন্য বিপুল অর্থ, এমনকি দামি উপহার দিতেও রাজি তারা।

সেই সব উপঢৌকনের বহর দেখলে চমকে যেতে হয়। কেউ ২০০টি উট উপহার দিতে চেয়েছেন ইউক্রেনের এই মডেলকে। কেউ বলেছেন কয়েক কিলো সোনা দেবেন। নিজের দামি চা, দামি ওয়াইনের সংগ্রহও উপুড় করে দিতে চেয়েছেন কেউ কেউ। তবে এর থেকেও বেশি লোভনীয় প্রস্তাব হাতে পেয়ে ছেড়ে দিয়েছেন লুইসা।

ইউক্রেনের লাস্যময়ী জানিয়েছেন, তাকে সারা জীবন পা ধুইয়ে দেওয়ার প্রস্তাব দিয়ে বিয়ে করতে চেয়েছিলেন একজন। এমন প্রস্তাব পেয়ে লুইসা খুশি হননি তা নয়। তবে বিয়ে করার ইচ্ছে হয়নি তার।

লুইসা জানিয়েছেন, তিনি জানেন তার বক্ষ-সৌন্দর্য পুরুষকে আকর্ষণ করে। তবে শুধু এই একটি কারণেই কারও জীবনসঙ্গী হওয়ার মনোবাঞ্ছা নেই তার। বরং লুইসা তার এই ‘বিশেষ সৌন্দর্য’ কিছুটা হ্রাস করতে পারলেই খুশি হবেন বলেও জানিয়েছেন একটি সাক্ষাৎকারে।

শারীরিক কারণেই নিজের স্তনের আকৃতি বদলাতে চান লুইসা। কারণ প্রায়শই এর জন্য অসুবিধায় পড়তে হয় তাকে। পোশাক বেছে নেওয়ার অসুবিধার পাশাপাশি, শারীরিক কসরত করার সময়ও অসুবিধায় পড়তে হয় তাকে।

লুইসা জানিয়েছেন, তার শারীরিক সৌন্দর্য তার যন্ত্রণার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। যন্ত্রণা এই বিয়ের প্রস্তাবও! গত ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হয়েছে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ। লুইসা জানিয়েছেন, তার পর থেকে গত চার মাসে অন্তত হাজার খানেক বিয়ের প্রস্তাব পেয়েছেন তিনি।

কিন্তু ইউক্রেনের এই মডেল লুইসা কোনও প্রস্তাবেই রাজি হতে পারছেন না। কারণ ব্যাখ্যা করে লুইসা জানিয়েছেন, তার দেশ এখন দুঃসময়ের মধ্যে দিয়ে চলেছে। তিনি উপার্জনের জন্য বিভিন্ন ওয়েবসাইটে নিজের ছবি দিচ্ছেন ঠিকই, কিন্তু তার মাথায় এই সময়ে বিয়ে করার ভাবনাই নেই।

বস্তুত, এই পরিস্থিতিতে নিজের দেশ ইউক্রেন ছেড়ে যেতেই চান না বলে জানিয়েছেন লুইসা। তিনি বলেছেন, সামান্য হলেও তিনি নিজের উপার্জন দিয়ে দেশকে যেটুকু সাহায্য করতে পারছেন, তা চালিয়ে যেতে চান।

তবে তার থেকেও বেশি তার কাছে যেটি গুরুত্বপূর্ণ, তা হল- দুঃসময়ে দেশ ছেড়ে চলে যাওয়ার মতো কাপুরুষোচিত কাজ করতে রাজি নন তিনি। অতঃপর, যুদ্ধদীর্ণ ইউক্রেনেই রয়েছেন তিনি। আর পাঁচ জন ইউক্রেনের নাগরিকের মতো তার আশা, এক দিন ঝড় থেমে যাবে…।

দেশ রূপান্তর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

1 × 3 =