ঈদের বাকি দুই সপ্তাহ প্রচারে মাত্র দুই সিনেমা

ঈদে সিনেমা মুক্তি দিতে আগ্রহ বেশি প্রযোজকদের। গত রোজার ঈদেও মুক্তি পেয়েছে ১১টি সিনেমা। তবে ঈদুল আজহায় সেই সংখ্যা নেমে আসতে পারে অর্ধেকে। ঈদের বাকি মাত্র দুই সপ্তাহ; অথচ দুটি সিনেমা ছাড়া এখনো সিনেমাগুলোর কোনো প্রচার চোখে পড়ছে না। এখন পর্যন্ত ঈদে মুক্তির আনুষ্ঠানিক ঘোষণা এসেছে রায়হান রাফীর ‘তুফান’, রাশীদ পলাশের ‘ময়ূরাক্ষী, সানী সানোয়ারের ‘এশা মার্ডার: কর্মফল’ ও এম রাহিমের ‘জংলি’ সিনেমার। এর মধ্যে গত শনিবার রাতে মুক্তির তালিকা থেকে নাম তুলে নিয়েছে এম রাহিমের জংলি।

গত রোজার সময় পোস্টার প্রকাশের মধ্য দিয়ে ঈদুল আজহায় মুক্তির ঘোষণা দেওয়া হয়েছিল জংলির। সেই মোতাবেক চলছিল সিনেমার শুটিং, ডাবিং। হঠাৎ করেই সিনেমা মুক্তি পিছিয়ে দিয়েছেন নির্মাতা। এম রাহিম বলেন, ‘ঈদে মুক্তির জন্য টানা শুটিং করেছি আমরা। একই সঙ্গে চলেছে পোস্ট-প্রোডাকশনের কাজ। মে মাসে আউটডোরে শুটিংয়ে প্রচণ্ড গরমে ইউনিটের অনেকেই অসুস্থ হয়ে পড়েন। তবু আমরা থেমে থাকিনি। সবশেষ ঘূর্ণিঝড় রিমালের প্রভাবে শুটিং বন্ধ রাখতে হয় আমাদের। পুরো একটি সেট ঝড়ে ভেঙে যায়। আমার মনে হচ্ছে, দর্শকদের যে সিনেমা আমরা উপহার দিতে চাই, এবার ঈদে মুক্তি দিতে গেলে সেই কোয়ালিটি অ্যাচিভ করা সম্ভব হবে না। তাই সিনেমাটি ঈদে মুক্তি না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়েছি।’

জংলি সিনেমায় প্রথমবার বড় পর্দায় জুটি হয়ে অভিনয় করছেন সিয়াম আহমেদ ও শবনম বুবলী। আরও আছেন দিলারা জামান, শহীদুজ্জামান সেলিম, রাশেদ মামুন অপু, সোহেল খান, এরফান মৃধা শিবলু প্রমুখ।

জংলি পিছিয়ে গেলেও এখনো প্রতিযোগিতার দৌড়ে টিকে আছে তুফান। ভারতে শুটিং শেষে এখন চলছে পোস্ট প্রোডাকশনের কাজ। পোস্টার, টিজারের পর সম্প্রতি প্রকাশ পেয়েছে সিনেমার আইটেম গান ‘লাগে উরাধুরা’। এতে শাকিব খানের সঙ্গে নেচেছেন কলকাতার মিমি চক্রবর্তী। একঝলক দেখা গেছে সংগীতশিল্পী প্রীতম হাসান ও পরিচালক রায়হান রাফীকেও।

এ ছাড়া মুক্তি উপলক্ষে পোস্টার ও ফার্স্টলুক টিজার প্রকাশ পেয়েছে ময়ূরাক্ষী সিনেমার। রাশীদ পলাশের পরিচালনায় এতে অভিনয় করেছেন ইয়ামিন হক ববি ও সুদীপ বিশ্বাস দ্বীপ। শোবিজ দুনিয়ার অন্তরালের গল্প নিয়ে নির্মিত হয়েছে ময়ূরাক্ষী।

তুফান ও ময়ূরাক্ষী প্রচার চালিয়ে গেলেও নিশ্চুপ এশা মার্ডার সিনেমার টিম। মহরতের সময় ঈদুল ফিতরের কথা জানালেও গত মার্চে ফার্স্টলুক টিজার প্রকাশ করে জানানো হয়, ঈদুল আজহায় মুক্তি পাবে এশা মার্ডার। গুঞ্জন উঠেছে ঈদুল আজহায় মুক্তি দেওয়া যাচ্ছে না সিনেমাটি। কারণ, এখনো কিছু অংশের শুটিং ও ডাবিং বাকি। সানী সানোয়ারের পরিচালনায় এশা মার্ডার সিনেমায় পুলিশের চরিত্রে দেখা যাবে আজমেরী হক বাঁধনকে। মার্ডার মিস্ট্রি ঘরানার এ সিনেমায় আরও আছেন সুমিত সেনগুপ্ত, ফারুক আহমেদ, মিশা সওদাগর প্রমুখ।

এ ছাড়া কোরবানির ঈদে মুক্তি দেওয়ার কথা বলেছিলেন আরও ছয় সিনেমার নির্মাতা বা অভিনেতারা। এগুলো হলো এম ডি ইকবালের ‘রিভেঞ্জ’, রাখাল সবুজের ‘পুলসিরাত’, হাসিবুর রেজা কল্লোলের ‘কবি’, আলোক হাসানের ‘নাকফুলে কাব্য’, মিঠু খানের ‘নীলচক্র’ এবং শরাফ আহমেদ জীবনের ‘চক্কর ৩০২’। তবে এখন পর্যন্ত উল্লেখযোগ্য কোনো প্রচার চোখে পড়েনি সিনেমাগুলোর। আসেনি ঈদে মুক্তির আনুষ্ঠানিক ঘোষণা।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

one + 16 =