ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের চরিত্রে দেব

গত কয়েক বছরে বাণিজ্যিক সিনেমার রোমান্টিক হিরোর তকমা অনেকটা ঝেড়ে ফেলছেন ওপার বাংলার জনপ্রিয় অভিনেতা দেব। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে নিজেকে ভেঙেছেন। একের পর এক গল্পনির্ভর সিনেমায় কাজ করে যাচ্ছেন অভিনেতা। এবার দিলেন নতুন চমক। ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবর, ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের চরিত্রে দেখা যেতে পারে দেবকে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম সংবাদ প্রতিদিন জানিয়েছে, সিনেমাটির পরিচালকের আসনে থাকতে পারেন নির্মাতা অরুণ রায়। এই নির্মাতার ফ্রেমে বরাবর দেশপ্রেমের গল্প ফুটে উঠেছে। অবিভক্ত ভারতের প্রথম চলচ্চিত্র নির্মাতাদের অন্যতম হীরালাল সেনকে নিয়ে তিনি তৈরি করেছিলেন ‘হীরালাল’। এরপর সেই অভিনেতা কিঞ্জল চট্টোপাধ্যায়কে নিয়েই ‘৮/১২ বিনয় বাদল দীনেশ’ তৈরি করেছেন। তারপর দেবকে নিয়ে করলেন ‘বাঘা যতীন’। অরুণের ঝুলিতে রয়েছে ‘চোলাই’-এর মতো রাজনৈতিক ছবিও।

এর মাঝেই গুঞ্জন, তিনি এবার বিদ্যাসাগরের জীবনকাহিনি পর্দায় ফুটিয়ে তুলতে চলেছেন। এ প্রসঙ্গে বিস্তারিত না বললেও পরিচালক সংবাদমাধ্যমের কাছে জানিয়েছেন, বাংলা গড়তে যাঁরা অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছেন, তাঁদের আদর্শ-কাজ ও ভাবনা তুলে ধরার জন্যই এই প্রয়াস। তাই অগ্নিযুগের ব্যক্তিত্বদের কাজ-কাহিনি একে একে পর্দায় ফুটিয়ে তুলতে চাইছেন তিনি।

দেশপ্রেম তাঁর পছন্দের প্লট। তবে অরুণ রায় এখন ক্যানসারে আক্রান্ত। আপাতত চিকিৎসকদের পরামর্শে বিশ্রামে রয়েছেন বটে, তবে তাঁর এই ভাবনা পর্দায় ফুটিয়ে তোলার কাজ কিন্তু বন্ধ রাখেননি।

আর এই মুহূর্তে ভোটের ময়দানে ব্যস্ত দেব। তার মধ্যেই বুধবার থেকে টালিউড অন্দরে জোর গুঞ্জন, ‘বাঘা যতীন’ দেব নাকি এবার বিদ্যাসাগরের চরিত্রে অভিনয় করবেন।

তবে এ বিষয়ে মূলত দুটো প্রশ্ন উঠেছে, প্রথমত দেব কি নিজেই মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করছেন? নাকি তিনি এই সিনেমার প্রযোজক? উল্লেখ্য, দেবকে আগেও অরুণ রায়ের ফ্রেমে ‘বাঘা যতীন’ হিসেবে দেখা গেছে। তাঁর সঙ্গে অভিনেতার দারুণ সুসম্পর্কও। আর সেই পরিচালকই যখন বিদ্যাসাগরকে নিয়ে ছবি তৈরি করতে চলেছেন, তখন দেবের নামটাই প্রথমে উঠে এসেছে স্বাভাবিকভাবে।

কিন্তু পরিচালক অরুণ বলছেন, দেবের চেহারার সঙ্গে মিললে তবেই তিনি বিদ্যাসাগরের চরিত্রে অভিনয় করেন। আবার এ-ও শোনা যাচ্ছে যে, অভিনয়ের পাশাপাশি দেবের প্রযোজনা সংস্থার ব্যানারেই এই সিনেমা তৈরি হবে। যদিও আপাতত সবটাই জল্পনা স্তরে, তবে অরুণ রায় কিন্তু বিষয়টি স্পষ্ট করে উড়িয়েও দেননি। সব ঠিক থাকলে চলতি বছরের শেষের দিকেই ছবির শুটিং শুরু হবে।

‘গোলন্দাজ’, ‘রঘু ডাকাত’, ‘বাঘা যতীন’-দেবের সিনেমায় বারবার উঠে এসেছে দেশপ্রেমের গল্প। ‘পাগলু’ কিংবা ‘দুই পৃথিবী’র সুপারস্টার বছরখানেক ধরে যেভাবে ছক ভেঙে ক্যামেরার সামনে ধরা দিচ্ছেন, তাতে মুগ্ধ হয়েছেন সিনে-সমালোচকরাও। যেকোনো চরিত্র আত্মস্থ করতেও কোনো রকম কসরত বাকি রাখেননি তিনি। সঙ্গে সিনেমাগুলোও বক্স অফিসে পেয়েছে ব্যবসায়িক সফলতা।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

fifteen + ten =