কঙ্গনা রাজনীতিতে যোগ দিতে পারেন

ভবিষ্যতে যদি মানুষ চান এবং কঙ্গনা নিজে মনে করেন যে তিনি লড়াইয়ে নামার জন্য তৈরি, তবে রাজনীতিতে যোগ দেবেন বলেই জানান।কঙ্গনা রানাউত জানিয়েছেন আপাতত অভিনেত্রী হিসেবেই খুশি তিনি।

শুক্রবার মুক্তি পায় তামিলনাড়ুর প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী জয়ললিতার বায়োপিক ‘থালাইভি’ । ছবিতে নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছেন কঙ্গনা। ছবির প্রচারে দিল্লিতে গিয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন অভিনেত্রী। সেখানে রাজনীতি সংক্রান্ত প্রশ্নের উত্তরে অভিনেত্রী বলেন, “আমি জাতীয়তাবাদী এবং দেশের স্বার্থে নানা বিষয়ে কথা বলি। আর মানুষজন ভাবেন আমি রাজনৈতিক বিষয়ে কথা বলছি। রাজনীতি আমার জন্য নয়, কারণ আমি রাজনীতিবিদ নই। আমি দেশের একজন দায়িত্বশীল নাগরিক হিসেবে কথা বলি। এমন একজন নাগরিক যাকে দেশবাসী তারকা তকমা দিয়েছেন। তাই আমি দেশবাসীর অধিকারের জন্য কথা বলি।”

এরপরই আবার কঙ্গনা বলেন, “আমি রাজনীতিতে যোগ দেব কী না, সেই সিদ্ধান্ত আমার হাতে নেই। মানুষের সাপোর্ট ছাড়া আপনি পঞ্চায়েত নির্বাচনও জিততে পারবেন না। মানুষ যদি চান অথবা আমি যদি মনি করি যে আমার সেই সামর্থ্য আছে তবেই রাজনীতিতে যোগ দেওয়ার কথা ভাবব। আপাতত আমি অভিনেত্রী হিসেবেই খুশি। তবে ভবিষ্যতে যদি মানুষ আমায় চান, নির্বাচিত করেন। তাহলে সিদ্ধান্ত নেওয়া যেতেই পারে।”

বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য বরাবরই খবরের শিরোনামে থাকেন কঙ্গনা রানাউত।  সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর করণ জোহর-সহ একাধিক বলিউড তারকার বিরুদ্ধে মন্তব্য করেছেন তিনি। মুম্বইকে আবার কাশ্মীরের সঙ্গে তুলনা করেছিলেন।  অভিনেত্রী ও তার বোন রঙ্গোলির বিরুদ্ধে উসকানিমূলক মন্তব্য করার জন্য মামলাও দায়ের হয়েছে। অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করেছিলেন গীতিকার জাভেদ আখতার । সেই মামলা খারিজের আবেদন জানিয়ে আদালতে গিয়েছিলেন কঙ্গনা। তবে তার সেই আবেদন খারিজ করে দেয় উচ্চ আদালত।

সংবাদ প্রতিদিন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

18 − 13 =