করোনা চিকিৎসায় প্রথম ট্যাবলেট অনুমোদন

বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের চিকিৎসায় মুখে খাওয়ার ওষুধ ‘মলনুপিরাভির’ ট্যাবলেট অনুমোদন দিয়েছে যুক্তরাজ্যে। দেশটির ওষুধ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বুধবার এই অনুমোদন দেয়। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এই খবর জানিয়েছে।

সম্প্রতি যারা করোনায় সংক্রমিত বলে শনাক্ত হয়েছেন এবং ঝুঁকিতে রয়েছেন তাদের ‘মলনুপিরাভির’ ট্যাবলেট দিনে দুইবার খেতে দেওয়া হবে।

যুক্তরাষ্ট্রের ওষুধ কোম্পানি মার্ক (এমএসডি নামে যুক্তরাজ্যে পরিচিত) উদ্ভাবিত এই মলনুপিরাভির ট্যাবলেটটি করোনার চিকিৎসায় মুখে খাওয়ার প্রথম অ্যান্টিভাইরাল ওষুধ।

মূলত ফ্লু’র চিকিৎসার জন্য এই ট্যাবলেট উদ্ভাবন করা হয়েছিল। ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে দেখা গেছে, এটি সেবনের ফলে করোনা রোগীদের হাসপাতালে ভর্তি বা মৃত্যু অর্ধেক কমাতে সক্ষম হয়েছে।

ব্রিটিশ স্বাস্থ্যমন্ত্রী সাজিদ জাভিদ জানান, এই চিকিৎসা পদ্ধতি ‘গেমচেঞ্জার’। এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, যুক্তরাজ্যের জন্য আজ এক ঐতিহাসিক দিন, বিশ্বে প্রথম দেশ হিসেবে একটি অ্যান্টিভাইরাল ওষুধ অনুমোদন পেয়েছে, যা করোনার চিকিৎসায় বাসায় সেবন করা যাবে।

যুক্তরাজ্যের ওষুধ নিয়ন্ত্রক সংস্থা এমএইচআরএ জানায়, করোনায় আক্রান্ত হালকা থেকে মাঝারি অবস্থার রোগী, যারা স্থূলতা, বেশি বয়স, ডায়াবেটিস বা হৃদরোগের মতো অন্তত একটি গুরুতর ঝুঁকি রয়েছে, তাদের জন্য এই ওষুধের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

সংস্থাটির প্রধান নির্বাহী জুন রেইনে এই চিকিৎসা পদ্ধতিকে করোনার বিরুদ্ধে একটি থেরাপিউটিক অস্ত্র হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

বাংলা ট্রিবিউন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

four − two =