গানের তারকা মাহমুদুন্নবীর আজ মৃত্যুবার্ষিকী

সঙ্গীতশিল্পী মাহমুদুন্নবীর নাম শোনেননি এমন লোক পাওয়া সত্যি বিরল। আধুনিক গানের অন্যতম পথিকৃৎ সঙ্গীতশিল্পী মাহমুদুন্নবী। অসংখ্য আধুনিক ও চলচ্চিত্রের গানে কণ্ঠ দিয়ে আজও তিনি বেঁচে আছেন সঙ্গীতপ্রেমীদের মনের মণিকোঠায়। ‘সুরের ভুবনে আমি আজও পথচারী, ক্ষমা করে দিও যদি না তোমায় মনের মত গান শুনাতে পারি’।

কালজয়ী এই সঙ্গীত শিল্পী বিজয়ের মাসে জন্মগ্রহণ করেন এমনকি মৃত্যুবরণও করেন ১৯৯০ সালের ডিসেম্বর মাসে। আজ ২০ ডিসেম্বর কালজয়ী এই সঙ্গীতশিল্পীর মৃত্যুবার্ষিকী।

৭০-এর দশকে গাজী মাজহারুল আনোয়ারের লেখা আর সত্য সাহার সুরে কালজয়ী এ গানের শিল্পী মাহমুদুন্নবী। একটা শিল্পীর কণ্ঠে কত দরদ আর কতটা আবেগ থাকলে এমন একটি গান প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে সমাদৃত হয়।

মাহমুদুন্নবীর উল্লেখযোগ্য গান গুলোর মধ্যে ‘তুমি যে আমার কবিতা’, ‘আমারও বাঁশি রাগিণী’, ‘তুমি কখন এসে দাঁড়িয়ে আছো আমার অজান্তে’, ‘ও গো মোর মধুমিতা’, ‘গীতিময় সেই দিন চিরদিন’, ‘সালাম পৃথিবী তোমাকে সালাম দুনিয়া কে করেছো টাকার গোলাম’, ‘খোলা জানালার পাশে একা বসে আছি’, ‘আমি সাত সাগর পাড়ি দিয়ে কেন সৈকতে পড়ে আছি’সহ অসংখ্য জনপ্রিয় গান।

১৯৭৬ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত রোমান্টিক চলচ্চিত্র ‘দি রেইন’-এ ‘আমি তো আজ ভুলে গেছি সবই’ গানটির জন্য তিনি শ্রেষ্ঠ পুরুষ কণ্ঠশিল্পী হিসেবে ১৯৭৭ সালে দ্বিতীয় জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন। মাহমুদুন্নবী আমাদের সঙ্গীত আকাশের এক জ্বলন্ত উজ্জ্বল নক্ষত্র।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

four + three =