গ্যাস, বিদ্যুৎ মূল্য বৃদ্ধি অপরিহার্য হয়ে পড়েছে

সালেক সুফী: জানি বিরাজমান বিশ্বপরিস্থিতির কারণে দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতি এড়ানোর সুযোগ নেই। আর তাই সেইসূত্রে গ্যাস, বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধিও অপরিহার্য। প্রতিটি মূল্য বৃদ্ধি বিশেষত গ্যাস, বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির পর্যায়ক্রমিক প্রভাব আছে। অথচ ক্রমাগত বিদেশি প্রাথমিক জ্বালানিনির্ভর হতে থাকা বাংলাদেশের বিদ্যুৎ,জ্বালানি খাতের সহসা মূল্যবৃদ্ধির করালগ্রাস থেকে মুক্তির উপায় নেই।

সীমিত পরিমাণ মূল্য বৃদ্ধি হবে, তবে সেটি যেন সহনীয় পর্যায়ে থাকে সেটিই চেষ্টা করতে হবে। হয়তো ট্যাক্স, ভ্যাট কিছুটা সমন্বয় করতে হবে, কিছুটা ভর্তুকি বাড়াতে হবে। জ্বালানির মূল্য বৃদ্ধি হলে বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধি হবে, যানবাহনের ভাড়া বাড়বে। পরিবহনের মূল্য বাড়ায় নিত্যপণ্যের মূল্য বৃদ্ধি ঘটবে। গ্যাস, বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধিতে শিল্প কারখানায় উৎপাদন খরচ বাড়বে। বিশ্ববাজারে রপ্তানি পণ্য প্রতিযোগিতায় কিছুটা পিছিয়ে পড়বে।

জানি জ্বালানি, বিদ্যুতের অপচয়-অপব্যবহার হয়, দুর্নীতি হয় নিরন্তর।  এগুলো নিয়ন্ত্রণের ব্যবস্থা শিথিল।  তবে এতো করেও মূল্য বৃদ্ধি এড়ানোর সুযোগ নাই। আমি বার্কের বিশ্লেষণ দেখেছি।  বার্ক নিজেও কিন্তু তাদের ক্ষমতা নানা কারণে প্রয়োগ করেনি। লাইসেন্সির উপর বার্কের নিয়ন্ত্রণ নাই বললে চলে।

সরকার সরকারি কোম্পানিগুলোকে অযাচিত নিয়ন্ত্রণ করে। কেন কি কারণে কাদের স্বার্থ রক্ষার্থে প্রকল্প নেওয়া হয়? কেন সিস্টেম লস নিয়ন্ত্রণ করা যায় না? এগুলোর কোনো ব্যাখ্যা নাই। বিদ্যুৎ এবং জ্বালানি সেক্টরে সুশাসনের অভাব এবং ব্যাপক দুর্নীতি আছে। জনগণের কাছে দায়বদ্ধতা নাই।  জানিনা কবে এই পরিস্থিতির মুক্তি কবে হবে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

1 × two =