গ্রেপ্তারের পর জামিনে মুক্ত যুবরাজ সিং

এক বছর আগে করা বৈষম্যমূলক মন্তব্যের অভিযোগে ভারতের সাবেক তারকা ক্রিকেটার যুবরাজ সিংকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। গ্রেপ্তারের কয়েক ঘণ্টা পর আদালত থেকে আগাম জামিন পেয়েছেন ভারতের সাবেক ওই অলরাউন্ডার। প্রায় এক বছর আগে নেটমাধ্যমে একটি নাচের ভিডিও পোস্ট করেছিলেন যুবেন্দ্র চাহাল। সেই নিয়ে রোহিত শর্মার সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে বৈষম্যমূলক মন্তব্য করেন যুবরাজ। সেই সময় তাকে গ্রেপ্তার করার দাবি ওঠে নেটমাধ্যমে। যুবরাজ যদিও ওই সময় ক্ষমা চেয়েছিলেন।

টুইট করে ক্ষমা চেয়ে ভারতের বিশ্বকাপজয়ী অলরাউন্ডার বলেছিন, ‘আমি কখনো কোনো জাতি, বর্ণ, ধর্ম অথবা লিঙ্গের বৈষম্যে বিশ্বাস করিনি। সারা জীবন মানুষের জন্য কাজ করেছি। আমি মানুষকে মর্যাদা দেওয়ায় বিশ্বাস করি। মানুষ একে অপরকে নিঃস্বার্থভাবে সম্মান করুক, এটাই চেয়ে এসেছি। বন্ধুদের কথা বলার সময় আমার একটি কথার অন্য অর্থ করা হয়েছে, যেটা অনভিপ্রেত। ভারতের একজন দায়িত্বশীল নাগরিক হিসেবে আমি যদি কারো ভাবাবেগে আঘাত করে থাকি, তার জন্য ক্ষমা চাইছি। আমি ভারতকে ভালোবাসি আর ভারতবাসী সব সময় আমার অন্তরে থাকে। ’

এ ঘটনায় এক বছর আগে ঝাঁসি শহরে যুবরাজের নামে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়। ওই অভিযোগের ভিত্তিতেই যুবরাজকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। তবে, কিছুক্ষণের মধ্যেই অন্তর্বর্তী জামিনে মুক্তি দেওয়া হয়।

২০০০ সালে ভারতের হয়ে অভিষেক ঘটে যুবরাজের। টি২০ বিশ্বকাপ (২০০৭) এবং বিশ্বকাপ (২০১১) জয়ী দলের সদস্য ছিলেন এই বাঁহাতি ব্যাটার। দুটি প্রতিযোগিতার সেরা ক্রিকেটার ছিলেন তিনি।

বাংলানিউজ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

eighteen − 4 =