ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থার ক্ষতি প্রায় ৯৬ কোটি টাকা

ঘূর্ণিঝড় রেমাল-এর প্রভাবে  সার্বিক ক্ষতির পরিমাণ প্রাথমিকভাবে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী প্রায় ৯৬ কোটি টাকা বলে জানা গেছে।

ঘূর্ণিঝড় রেমাল-এর প্রভাবে প্রায় ৮০টি পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ভৌগলিক এলাকায় ঝড়-বৃষ্টির খবর পাওয়া গেছে যার মধ্যে ৬৫টি সমিতিতে গ্রাহক সংযোগ  আংশিক বা সম্পূর্ণ বন্ধ আছে। এছাড়া ঘূর্ণিঝড় প্রবণ এলাকার ৩০টি সমিতিতে রেমাল-এর আঘাতে প্রাথমিক ক্ষয়-ক্ষতির তথ্য:

পোল বিনষ্ট-২৩৯২টি, ট্রান্সফরমার বিনষ্ট-১৯৮২টি, স্প্যান (তার ছেঁড়া)-৬২৪৫৪টি, ইন্সুলেটর ভাঙ্গা-২১৮৪৮টি, মিটার বিনষ্ট-৪৬৩১৮টি। সার্বিক ভাবে প্রাথমিক ক্ষয়ক্ষতি ৭৯০২ (উনআশি কোটি দুই লক্ষ) টাকা। বেলা ২টা পর্যন্ত প্রাপ্ত তথ্যানুসার বিদ্যুৎ বিহীন গ্রাহক-১,২৬,৭৯,০০০ (এক কোটি ছাব্বিশ লক্ষ উনআশি হাজার)।

ঘূর্ণিঝড় রেমাল-এর প্রভাবে ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি (ওজোপাডিকো)’র প্রাথমিক ক্ষয়-ক্ষতির তথ্য: পোল বিনষ্ট-২০টি,  পোলে হেলে পড়া-১৩৫টি, বৈদ্যুতিক তার ছিড়ে যাওয়া-২৪.৩৪ কিমি, ১১ কেভি পোল ফিটিংস বিনষ্ট হওয়া-১৪২ সেট, ট্রান্সফরমার বিনষ্ট-১২টি, ১১ কেভি ইন্সুলেটর বিনষ্ট-১৩৪। সার্বিক ভাবে প্রাথমিক ক্ষয়ক্ষতি ৫,৭৬,৭৫,৫০০ (পাঁচ কোটি ছিয়াত্তর লক্ষ পঁচাত্তর হাজার পাঁচশত) টাকা। বেলা ৫টা পর্যন্ত প্রাপ্ত তথ্যানুসারে ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে বিদ্যুৎ বিহীন গ্রাহক সংখ্যা ৪,৫৩,০৮১ (চার লক্ষ তিপান্ন হাজার একশি)।

ঘূর্ণিঝড় “রেমাল” পরবর্তী FSRU -এর অপারেশনাল কার্যক্রম স্বাভাবিক রয়েছে।  ঘূর্ণিঝড়ের কারণে স্থাপনাসমূহের কোন ধরনের ক্ষতি সাধিত হয়নি। এখনো প্রচন্ড ঝড়োবাতাস সহ বৃষ্টি ও High Wave বিদ্যমান রয়েছে।  ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে হ্রাসকৃত RLNG সরবরাহ গতকাল বিকেল থেকে ধীরে ধীরে বৃদ্ধি করে বর্তমানে তা ১০০০ এমএমসিএফডিতে উন্নীত হয়েছে। আজ দুপুর হতেই তা ১১০০ এমএমসিএফডি তে উন্নীত করা সম্ভব হয়েছে।

ঘূর্ণিঝড় চলমান থাকায় ক্ষয়-ক্ষতির প্রকৃত পরিমাণ সরেজমিনে পরিদর্শন পূর্বক নির্ণয় করা সম্ভব হয়নি। প্রাথমিকভাবে  মাঠ পর্যায়ে কর্মকর্তাগণের সাথে টেলিফোনে আলোচনা করে ক্ষয়-ক্ষতির একটি প্রাক্কলন প্রস্তুত করা হয়েছে। কেন্দ্রীয়ভাবে ২৪ ঘন্টাব্যাপী কন্ট্রোল রুম-এর মাধ্যমে তদারকি করা হচ্ছে। জেলা পর্যায় ও সমিতি ভিত্তিক কন্ট্রোল রুম রয়েছে। পরিবহন ঠিকাদারকে স্ট্যান্ডবাই রাখা হয়েছে। পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড (আরইবি) ও  ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি (ওজোপাডিকো) এলাকায় সকল ধরনের কর্মকর্তাগণের ছুটি বাতিল করে রক্ষণাবেক্ষণ কাজের জন্য প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

বিদ্যুৎ বিভাগের নির্দেশে সংশ্লিষ্ট এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক করার জন্য পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড (আরইবি) ও  ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি (ওজোপাডিকো)-এর লোকজন প্রয়োজনীয় মালামালসহ প্রস্তুত রয়েছে। ঝড় বা বাতাস কমার সাথে সাথে বিদ্যুৎ সংযোগ স্বাভাবিক করা হবে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

twenty − twelve =