জয় বাংলা ম্যারাথন অনুষ্ঠিত

রাজধানীর হাতিরঝিলে অনুষ্ঠিত হয়েছে ‘জয় বাংলা ম্যারাথন-২০২৪’হাফ ম্যারাথন প্রতিযোগিতা।

নারী ও পুরুষ অ্যাথলেটদের অংশগ্রহণে বাংলাদেশ পুলিশ অ্যাথলেটিকস ও সাইক্লিং ক্লাবের উদ্যোগে আয়োজিত ‘জয় বাংলা ম্যারাথন-২০২৪’ জাঁকজমকপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে। খবর বাসস

বাংলাদেশ পুলিশ অ্যাথলেটিকস ও সাইক্লিং ক্লাবের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, আজ শুক্রবার ভোর ৫ টায় রাজধানীর হাতিরঝিলে এ প্রতিযোগিতা শুরু হয় এবং শেষ হয় সকাল ৯টায় । প্রতিযোগীদেরকে ২১.০৯ কিলোমিটার দৌড়াতে হয়।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান ফজলুর রহমান এমপি এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম।

এ সময় পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) প্রধান এবং বাংলাদেশ পুলিশ অ্যাথলেটিকস ও সাইক্লিং ক্লাবের সভাপতি অতিরিক্ত আইজিপি বনজ কুমার মজুমদারসহ আয়োজক কমিটির ঊর্ধ্বতন পুলিশ অফিসারগণ উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, প্রতিযোগিতায় অ্যাথলেটগণ ৪টি ক্যাটাগরিতে অংশগ্রহণ করেন। প্রতিযোগিতার ব্যাপ্তিকাল ছিল ৩ ঘন্টা ৪০ মিনিট। ১৬-৫০ বছর বয়সী পুরুষ ক্যাটাগরিতে প্রথম স্থান অধিকার করেন আল-আমিন, তিনি ১ ঘন্টা ১৬ মিনিট ৯১ সেকেন্ড সময়ে ফিনিসিং লাইন অতিক্রম করেছেন। ৫০ ঊর্ধ্ব মহিলাদের ক্যাটাগরিতে প্রথম স্থান অধিকার করেন নারী অ্যাথলেট ইরি লি কৈকি, তিনি ২ ঘন্টা ২০ মিনিট ৪ সেকেন্ড সময়ে ফিনিসিং লাইন অতিক্রম করেছেন।

পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা আসাদুজ্জামান খান এমপি। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল ও বাংলাদেশ পুলিশ ক্রীড়া পরিষদের সভাপতি চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন। অতিরিক্ত আইজিপি (প্রশাসন) মো. কামরুল আহসান, ডিএমপি কমিশনার হাবিবুর রহমান, বাংলাদেশ পুলিশের অতিরিক্ত আইজিপিগণ, ডিআইজিগণসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকতাগণ উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথি হিসেবে ম্যারাথন উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান ফজলুর রহমান। বিশেষ অতিথি ছিলেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম।

পুলিশ জানায়, ম্যারাথনে অংশগ্রহণকারীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে রাত ৩টা থেকে হাতিরঝিলে ৬৫০ জন পুলিশ সদস্যকে আইনশৃঙ্খলা ও ট্র্যাফিক ব্যবস্থাপনায় মোতায়েন করা হয়েছিল।

এতে ড্রোন ক্যামেরার মাধ্যমে সম্পূর্ণ অনুষ্ঠান পর্যবেক্ষণ করা হয়। স্ট্যান্ডবাই হিসেবে রাখা হয় এক্সপ্লুসিভ রিকভারি অ্যান্ড বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট, ক্রাইম সিন টিম, ডগ স্কোয়াড এবং সোয়াট টিম।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

two × two =