জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবেলায় সর্বজনীন স্বাস্থ্য সেবা জরুরি

ঢাকা, ৪ মার্চ, ২০২৪ (বাসস): জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতিকর প্রভাবে নারী ও শিশুসহ ক্ষতিগ্রস্ত জনগোষ্ঠীর জন্য সর্বজনীন স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত জরুরি। দাতব্য সংস্থা ‘স্টেপ টু হিউম্যানিটি’ বাংলাদেশ আয়োজিত ‘জলবায়ু-ভালনারেবল নারী ও শিশুদের স্বাস্থ্য সংকট মোকাবেলা’ শীর্ষক এক ভার্চুয়াল আলোচনায় বক্তারা একথা বলেন।

বাংলাদেশ উত্তর আমেরিকান জার্নালিস্ট নেটওয়ার্কের সহযোগিতায় শনিবার রাতে এই ভার্চুয়াল আলোচনায় সভাপতিত্ব করেন ‘স্টেপ টু হিউম্যানিটি’ অ্যাসোসিয়েশনের নির্বাহী পরিচালক এবং বাংলাদেশ উত্তর আমেরিকান জার্নালিস্ট নেটওয়ার্কের সভাপতি কানাডা প্রবাসী সাংবাদিক, লেখক বীর মুক্তিযোদ্ধা দেলোয়ার জাহিদ।

অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন কুমিল্লার বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন একাডেমির সাবেক পরিচালক নাসিমা আক্তার। সম্মানিত অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন একাডেমির সাবেক পরিচালক ড. আনোয়ার জাহিদ, কৃষি বিজ্ঞানী ড. মোহাম্মদ আলম, ‘স্টেপ টু হিউম্যানিটি’ বাংলাদেশের সভাপতি ড. কামরুল হাসান।

আলোচনায় দৈনিক যুগান্তরের সাংবাদিক শামসুল হুদা, বাংলাদেশ হেরিটেজ অ্যান্ড ইথেনিক সোসাইটি অব আলবার্টার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সাইফুর হাসান এবং নারী ও শিশু কর্মী কোরা হাসান ইভানাসহ বিভিন্ন সম্মানিত ব্যক্তিগণ অংশগ্রহণ করেন। এই সময় স্টেপ টু হিউম্যানিটি বাংলাদেশের সাধারণ সম্পাদক ও বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার (বাসস) ডেপুটি চিফ রিপোর্টার মো.সাজ্জাদ হোসেন, দৈনিক ভোরের সূর্যোদয়ের সম্পাদক ফিরোজ মিয়া ও এসরার জাহিদ খসরুসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

মূল প্রবন্ধে নাসিমা আক্তার বাংলাদেশের জলবায়ু-ঝুঁকিপূর্ণ অঞ্চলে নারী ও শিশুদের স্বাস্থ্য সংকট মোকাবেলায় বহুমুখী পদ্ধতির জরুরি প্রয়োজনের ওপর জোর দেন। তিনি জনসাধারনের চাহিদা অনুসারে লক্ষ্যযুক্ত হস্তক্ষেপের সাথে সর্বজনীন স্বাস্থ্যসেবার নীতিগুলোকে একীভূত করার উপর গুরুত্বারোপ করেন।

তিনি বলেন, স্থিতিস্থাপক স্বাস্থ্য ব্যবস্থায় বিনিয়োগকে অগ্রাধিকার দিয়ে নারীর ক্ষমতায়ন এবং স্টেকহোল্ডারদের মধ্যে সহযোগিতা বৃদ্ধির মাধ্যমে জলবায়ু অনিশ্চয়তার মধ্যেও বাংলাদেশ তার সকল নাগরিকের জন্য একটি স্বাস্থ্যকর আরও ভবিষ্যত গড়ার দিকে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি করতে পারে।

দেলোয়ার জাহিদ জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবেলা করার সময় এর ঝুঁকিপূর্ণ জনগোষ্ঠীর জন্য পর্যাপ্ত স্বাস্থ্যসেবা প্রদানের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের মুখোমুখি দ্বৈত চ্যালেঞ্জের কথা তুলে ধরেন। তিনি পরিবেশগত কারণগুলোর দ্বারা তীব্রতর হওয়া স্বাস্থ্য সঙ্কটের প্রতি নারী ও শিশুদের অসামঞ্জস্যপূর্ণ  দুর্বলতার ওপর জোর দেন এবং এই চ্যালেঞ্জগুলোর মোকাবেলায় স্থিতিস্থাপকতা বাড়ানোর জন্য সর্বজনীন স্বাস্থ্যসেবা বাস্তবায়নের অপরিহার্যতার ওপর জোর দেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

6 + nineteen =