জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টানা দ্বিতীয় জয় চায় টাইগাররা

সফরকারী জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে পাঁচ টি-টোয়েন্টি সিরিজে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে যাওয়ার লক্ষ্য নিয়ে আগামীকাল  দ্বিতীয় ম্যাচে মাঠে নামবে স্বাগতিক বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরি স্টেডিয়ামে  ম্যাচটি শুরু হবে  বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৬টায়।

বোলিংসহ তিন বিভাগেই  দুর্দান্ত নৈপুণ্য দেখিয়ে প্রথম ম্যাচে ৮ উইকেটে জয় তুলে নিয়েছে টাইগাররা। মূলত  প্রথম ম্যাচে একক প্রাধান্য  দেখিয়ে ম্যাচ জিতেছে স্বাগতিক দল।

পেসার শরিফুল ৪ ওভার বোলিং করে  ৩৭ রান দিয়ে যদিও  ছিলেন উইকেটশুন্য। তবে অপর দুই পেসার  তাসকিন আহমেদ ও মোহাম্মদ সাইফুদ্দিনের দুর্দান্ত নৈপুন্যে  ম্যাচে জয় পেতে  বাংলাদেশ দলের কোন সমস্যা হয়নি। রান দিতে দারুন কার্পন্য দেখিয়ে তাসকিন- সাইফুদ্দিন  উভয়েই  তিনটি করে উইকেট নিয়েছেন।

পেসারদের সাথে দুই  স্পিনার মাহেদি হাসান ও রিশাদ হোসেন দুর্দান্ত বোলিংয়ে জিম্বাবুয়ে মাত্র  ১২৪  রানে গুটিয়ে যায়। জবাবে আন্তর্জাতিক  টি-টোয়েন্টিতে অভিষেক হওয়া তারজিদ হাসান তামিমের ৪৭ বলে অপরাজিত ৬৭ রানে ১৫ দশমিক ২ ওভারেই মাত্র ২ উইকেট হারিয়ে ১২৬ রান তুলে  জয় নিশ্চিত করে  বাংলাদেশ।  ওপেনিংসহ  মিডল অর্ডার ব্যাটাররা ব্যর্থ হলেও সফরকারীদের টেলএন্ডার দৃঢ়তা দেখিয়েছে।

মাত্র পাঁচ রানের ব্যবধানে ছয় উইকেট হারিয়ে এক পর্যায়ে দলীয় ৪১ রানে ৭ উইকেটে পরিনত হয় জিম্বাবুয়ে।

কিন্তু অষ্টম উইকেটে বাংলাদেশ বোলারদের সামনে প্রতিরোধ গড়ে তোলেন উইকেটরক্ষক ক্লাইভ মানদান্দে ও ওয়েলিংটন মাসাকাদজা। ১৮তম ওভারে জিম্বাবুয়ের রান ১শতে নিয়ে যান তারা। ১৯তম আউট হওয়ার আগে ৬টি চারে ৩৯ বলে ৪৩ রান করেন মানন্দান্দে। অষ্টম উইকেটে ৬৫ বলে ৭৫ রান যোগ করেন মানদান্দে ও মাসাকাদজা। টি-টোয়েন্টি ভার্সনে  বাংলাদেশের বিপক্ষে অষ্টম উইকেটে জিম্বাবুয়ের এটিই সর্বোচ্চ রানের জুটি।

মূলত  তাদের জুটির  কল্যানেই এর আগে সংক্ষিপ্ত ভার্সনে বাংলাদেশের  বিপক্ষে জিম্বাবুয়ের  সর্ব নিম্ন ৮০ রানের কোটা পার করে জিম্বাবুয়ে। তবে  আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে  খেলার যোগ্যতা অর্জনে ব্যর্থ হওয়া একটি দলের অষ্টম উইকেট জুটিতে  ৭৫ রান যোগ করা অবশ্যই  টাইগারদের জন্য একটা  দুঃশ্চিন্তার  বিষয়।

অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত  যদিও ম্যাচ জিতে খুশি এবং  আগামী ম্যাচগুলোতেও পারফরমেন্সের ধারা অব্যাহত রাখতে চান।

শান্ত বরেন,‘গত দুই দিন সত্যিই আমরা কঠোর পরিশ্রম করেছি। তাজিদের  ব্যাটিংয়ের ধরন  দলের জন্য সহায়ক  হয়েছে  এবং আশা করছি সে  এ ফর্ম অব্যাহত রাখবে।

‘তাওহিদ হৃদয়ও ভাল করেছে  এবং এমন উইকেটে  নিজেকে  প্রমান করেছেন।  বিশেষ করে ইনিংস শেষ শেষ করে আসায় তানজিদের ওপর আমি দারুন খুশি।’

সংক্ষিপ্ত ভার্সনে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ২১ ম্যাচে  এটা ছিল বাংলাদেশের ১৪তম জয়।  বাকি সাত ম্যাচে পুর্ব আফ্রিকার দেশটির কাছে পরাজিত হয়েছে বাংলাদেশ।

আগামীকালের ম্যাচ জিতে  সিরিজে ফিরতে মরিয়া  জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক সিকান্দার রাজা অবশ্য নিজ দলের সিনিয়র খেলোয়াড়দের ঘূড়ে দাঁড়ানোর আহবান জানিয়েছেন।

বাংলাদেশ দল(সম্ভাব্য): নাজমুল হোসেন শান্ত (অধিনায়ক), লিটন দাস, তানজিদ হাসান তামিম, তওহিদ হৃদয়, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, জাকের আলী অনিক, শেখ মাহেদি, রিশাদ হোসেন, তাসকিন আহমেদ, শরিফুল ইসলাম, তানজিম হাসান সাকিব, পারভেজ হোসেন ইমন, তানভির ইসলাম, আফিফ হোসেন ও মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন।

জিম্বাবুয়ের দল(সম্ভাব্য): সিকান্দার রাজা (অধিনায়ক), ফারাজ আকরাম, ব্রায়ান বেনেট, রায়ান বার্ল, জোনাথন ক্যাম্পবেল, ক্রেগ আরভিন, জয়লর্ড গাম্বি, লুক জঙ্গি, ক্লাইভ মাদান্দে, তাদিওয়ানাশে মারুমানি, ওয়েলিংটন মাসাকাদজা, ব্লেসিং মুজারাবানি, এন্সলি এন্দলোভু, রিচার্ড এনগারাভা ও সিন উইলিয়ামস।

বাসস

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

2 × 1 =