টি২০ বিশ্বকাপ ২০২৪: শীর্ষ ফেভারিট অস্ট্রেলিয়া, ভারত

সালেক সুফী

ক্রিকেট পণ্ডিত, ভক্ত, অনুরাগীরা নানা তথ্য উপাত্ত বিশ্লেষণ করে শিরোপাধারী অস্ট্রেলিয়া এবং বর্তমান মুহূর্তে তুখোড় ফর্মে থাকা ভারতকে এবারের টি২০ বিশ্বকাপে শীর্ষ ফেভারিট দল বলে চিহ্নিত করেছেন। কারো কারো মতে সুযোগ আছে পাকিস্তান এবং ইংল্যান্ডের চমকে দেওয়ার। কিছু বিশ্লেষক আবার অন্যতম স্বাগতিক বিশ্ব ক্রিকেটের একসময়ের তুখোড় দল ওয়েস্ট ইন্ডিজের সম্ভাবনা দেখছেন। পর্যায়ক্রমে সকল দলের সম্ভাবনা পর্যালোচনা করবো।

অস্ট্রেলিয়া কেন চিরদিন বিশ্ব ক্রিকেট মঞ্চের ফেভারিট দল:

নিজের বর্তমান দেশ বলে বলছি না অস্ট্রেলিয়া কিন্তু ক্রিকেটের যেকোনো ফরম্যাটে যে কোনো বৈষয়িক টুর্নামেন্টে শিরোপা জয়ের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে নিজেদের প্রমাণ করেছে। অস্ট্রেলিয়া একমাত্র দল যারা এযাবৎ বিশ্বের প্রতিটি কন্টিনেন্টে অনুষ্ঠিত ওডিআই বিশ্বকাপ জয় করেছে। পাশাপাশি জিতেছে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ, টি২০ বিশ্বকাপ।  এই সুবাদে অস্ট্রেলিয়াকে অনেকেই ফুটবলের ব্রাজিল বলতেও দ্বিধা করেন না।  ব্রাজিল প্রতিটি বিশ্বকাপ ফুটবলে আসে হেক্সা জয়ের মিশন নিয়ে। অস্ট্রেলিয়া কিন্তু ভারতে অনুষ্ঠিত ২০২৩ ওডিআই বিশ্বকাপ জিতে ক্রিকেটের হেক্সা জিতে নিয়েছে।

অস্ট্রেলিয়ার ওডিআই বিশ্বকাপ শিরোপা:

১৯৮৭ ভারতের কলকাতা ইডেন গার্ডেনসে ইংল্যান্ডকে পরাজিত করে প্রথম বারের মতো বিশ্বকাপ জয়।

১৯৯৯ ইংল্যান্ডের লর্ডস ক্রিকেট মাঠে পাকিস্তানকে পরাজিত করে দ্বিতীয়বার বিশ্বকাপ জয়।

২০০৩ দক্ষিণ আফ্রিকার জোহানেসবার্গে ভারতকে পরাজিত করে তৃতীয়বার বিশ্বকাপ জয়।

২০০৭ বার্বাডোজের কেনসিংটন ওভালে শ্রীলংকাকে পরাজিত করে চতুর্থ বার বিশ্বকাপ জয়।

২০১৫ অস্ট্রেলিয়ার এমসিজিতে নিউ জিল্যান্ডকে পরাজিত করে বিশ্বকাপ পঞ্চম বার বিশ্বকাপ  জয়।

২০২৩ ভারতের গুজরাটে নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়ামে ভারতকে পরাজিত করে ষষ্ট বার বিশ্বকাপ জয়।

২০২৩ ইংল্যান্ডের ওভালে অনুষ্ঠিত আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে ভারতকে পরাজিত করে টেস্ট শিরোপা জয় করে অস্ট্রেলিয়া।

২০২১ সংযুক্ত আরব আমিরাতে অনুষ্ঠিত টি২০ বিশ্বকাপে নিউ জিল্যান্ডকে পরাজিত করে শিরোপা জিতে অস্ট্রেলিয়া।

এহেন অস্ট্রেলিয়া এবারের বিশ্বকাপেও শিরোপা জয়ের অন্যতম ফেভারিট দল বলাই বাহুল্য।

অস্ট্রেলিয়া স্কোয়াড: মিচেল মার্শ (অধিনায়ক),  ট্রাভিস হেড, ডেভিড ওয়ার্নার, টিম ডেভিড, জোস্ ইংলিশ, মার্কস স্টোনিস, ক্যামেরুন গ্রিন, মাঠেও ওয়েড, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, অস্টন এগার, নাথান এলিস, পাট কামিন্স, মিচেল স্টার্ক, জোস্ হেজেলউড, এডাম জাম্পা।

টি২০ এই স্কোয়াডে স্টিভ স্মিথ না থাকা কিছুটা বিস্ময়ের হলেও দলে ট্রাভিস হেড, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, মিচেল মার্শের, ডেভিড ওয়ার্নারের মতো তুখোড় ব্যাটসম্যান আছে যারা একজন নিজেদের দিনে ম্যাচ জয় করতে পারে। দলের পেস বোলিং মিচেল স্টার্ক, জোস্ হ্যাজেলউড, পাট কামিন্সের মাধ্যমে বিশ্বসেরা, স্পিনার হিসেবে রয়েছে এডাম জাম্পা, এস্টন এগার এবং প্রয়োজনে গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। মার্কাস স্ট্যানিস, টিম ডেভিড, ম্যাথিউ ওয়েড দলের প্রয়োজনে বহুমুখী অবদান রাখতে পারবে।

গ্রুপ বি থেকে অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড পরবর্তী গ্রুপে উন্নীত হতে আমি কোনো চ্যালেঞ্জ দেখি না। আর নকআউট পর্যায়ে অস্ট্রেলিয়া সব সময় দুরন্ত হয়ে ওঠে। একমাত্র সমস্যা হতে পারে ওয়েস্ট ইন্ডিজের অপেক্ষাকৃত ধীরগতির স্পিনিং উইকেটে অস্ট্রেলিয়ার সীমিত স্পিন আক্রমণ। জানি অস্ট্রেলিয়া নিবিড় প্রস্তুতির মাধ্যমে নিজেদের ঝালিয়ে নিয়েছে। আমি অস্ট্রেলিয়াকে সেমি ফাইনাল এমনকি ফাইনালে ওঠার যোগ্যতম দল বলেই মনে করি। তবে যেহেতু খেলাটির নাম ক্রিকেট তাই যে কোনো আগাম কথা যে কোনো ভবিষ্যৎবাণী অক্ষরে অক্ষরে ফলবে বলা বোকামি।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

11 − five =