ট্রেলার দেখে পুরো ছবি নিয়ে মন্তব্য করা যায় না: শ্যাম বেনেগাল

বাংলাদেশের সোশ্যাল মিডিয়ায় ওঠা প্রতিক্রিয়ায় বিস্ময় প্রকাশ করেছেন ছবিটির পরিচালক শ্যাম বেনেগাল। তার মতে, ৯০ সেকেন্ডের ট্রেলার দেখে পুরো ছবি নিয়ে মন্তব্য করা যায় না।ফ্রান্সের কান চলচ্চিত্র উৎসবে ট্রেলারটি ‘ভালোভাবেই’ প্রকাশ হয় উল্লেখ করে শ্যাম বলেন, বাংলাদেশের তথ্যমন্ত্রী ও রাষ্ট্রদূত সেখানে ছিলেন।

শনিবার দিবাগত রাতে টেলিগ্রাফ ইন্ডিয়া বিখ্যাত নির্মাতার মন্তব্য প্রকাশ করে। সেখানে তিনি বলেন, কিছু মন্তব্য করা হয়েছে, আমি এইমাত্র একটি বার্তায় জেনেছি । তারা কেন বিরক্ত তা অনুমান করা আমার পক্ষে খুব কঠিন। আমি সোমবার অফিসে পৌঁছে একবার চেক করব।

‘মুজিব- একটি জাতির রূপকার’ ছবির ট্রেলার নিয়ে বাংলাদেশিদের মাঝে নেতিবাচক প্রতিক্রিয়ার শেষ নেই। বৃহস্পতিবার ভিডিওটি মুক্তির পর অভিনয়, ভিএফএক্স-সহ নানা বিষয়ে কথা উঠেছে।

এর আগে শ্যাম বেনেগাল ব্রিটিশবিরোধী বাঙালি বিপ্লবী নেতাজী সুভাষ চন্দ্র বসুর ওপর ‘বোস: দ্য ফরগটেন হিরো’ নামে চলচ্চিত্র তৈরি করেন। সেখানে এমিলি শেঙ্কলের সঙ্গে নেতাজীর বিয়ে দেখানোয় তাকে আদালত পর্যন্ত যেতে হয়।

সেই কথা উল্লেখ করে বলা হচ্ছে, ‘মুজিব’ বায়োপিকের ট্রেলারে শেখ মুজিবুর রহমান ‘পরিবার অন্তপ্রাণ মানুষ’ হিসেবে বর্ণনা করা হয়েছে এবং পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে তার কথোপকথনের কিছু দৃশ্য রয়েছে। শ্যাম বেনেগাল বলেন, সুভাষ বোস বাংলা ছেড়ে তার আদি পরিবার থেকে অনেক দূরে চলে গিয়েছিলেন। কিন্তু মুজিব তার পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন ছিলেন না। তাকে কারাগারে বন্দী করে পশ্চিম পাকিস্তানে নিয়ে যাওয়ার সময় ছাড়া। এ কারণেই নেতিবাচক প্রতিক্রিয়ার কারণ তিনি জানতে চান।

শ্যাম বেনেগাল বলেন, ছবিটির শুটিংয়ে ঢাকায় ছিলেন এবং পুরো কাস্ট বাংলাদেশের। তাদের কিছু শব্দের উচ্চারণ পশ্চিমবঙ্গে কথ্য বাংলা থেকে আলাদা এবং তারা তাদের বাংলা নিয়ে গর্ব করে। সে সবই আছে ছবিতে। সে জন্য আমি শুধু বাংলাদেশের অভিনেতাদের নিয়েছিলাম কারণ তারা মুজিবকে নিয়ে অনেক বেশি একাত্ম বোধ করবে।

অঙ্কুর, ত্রিকাল-খ্যাত নির্মাতা বলেন, মানুষ এখনও ছবিটি দেখেনি। আপনি ৯০ সেকেন্ডের ট্রেলার দেখে একটি ফিল্ম নিয়ে মন্তব্য করতে পারবেন না, শুধুমাত্র ট্রেলার সম্পর্কে মন্তব্য করতে পারেন।

দেশ রূপান্তর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

twenty + four =