তবে কি বাংলাদেশ সোনালী সুযোগ হারালো?

সালেক সুফী

চার দিনের অধিকাংশ সময় ভালো ক্রিকেট খেলা বাংলাদেশ কিছু অসতর্ক মুহূর্তের খেসারত দিয়ে হয়তো ম্যাচ জয়ের সোনালী সম্ভাবনা হারিয়েছে। চূড়ান্ত কিছু বলছি না। তবে আপাত দৃষ্টিতে মনে হয় শ্রীলংকা হয়তো রক্ষা পাবে যদি না স্পিন ধরা উইকেটে পঞ্চম দিনের সকালে বাংলাদেশের সাকিব, তাইজুল,  নাঈম চট জলদি কয়েকটি উইকেট তুলে নিতে না পারে। বলছি চট্টগ্রামের সাগরিকায় জহুর আহমেদ চৌধুরী ক্রিকেট স্টেডিয়ামে চলতে থাকা বাংলাদেশ শ্রীলংকা টেস্ট ম্যাচের কথা। সফরকারী দলের ৩৯৭ রানের জবাবে ব্যাট করতে থাকা বাংলাদেশ মুশফিক লিটনের বাটে ছোড়ে চতুর্থ দিন লাঞ্চ বিরতিতে ৩৮৫/৩ চালকের আসনে ছিল। সেখান থেকে ১২০-১৩০ লিড নেয়ার স্বপ্ন দেখা অলীক কিছু ছিল না। জানিনা লাঞ্চ বিরতিতে কি হলো। বিরতির পর হঠাৎ একাল অকাল কাল বৈশাখী লিটন, তামিমকে পর পর দুটি বলে উপরে ফেলে বুনতে থাকা স্বপ্নের জাল ছিরে দিলো। তবুও মুশফিক (১০৫), তাইজুলের (২০) চেষ্টায় ৬৮ রান লিড পেয়েছে বাংলাদেশ। অন্তত নিরাপদ বাংলাদেশ। তবে টেস্ট জয় পাবে কিনা সেটি এখন অনেক সমীকরণের মুখোমুখি। দিন শেষে ৩৯/২ রান করে ২৯ রানে পিছিয়ে আছে সফরকারী দল। উইকেটে স্পিন ধরছে। তবে মনে হয় খেলাটি হয়তো জয় পর্যায়ে নিস্পত্তি হবে না।

যাক সে কোথায় পরে আসছি। কালকের দিনটি স্মরণীয় হয়ে থাকবে বাংলাদেশের লিটল মাস্টার মিস্টার ডিপেন্ডেবল মুশফিকুর রহিমের অর্জনের মুকুটে নতুন পালক যোগ হবার কারণে। যোগ্যতম ক্রিকেটার হিসাবেই ৮ম টেস্ট শতক পাবার পথে প্রথম ব্যাটসম্যান হিসাবে ৫০০০ রানের মাইল ফলক অর্জন করেছে বেটে খাটো বগুড়ার ইতিহাসে স্নাতক মানুষটি। আর এই অর্জনের মাধমে মুশফিকের স্থান হয়েছে স্যার ডোনাল্ড ব্র্যাডম্যান,  স্যার জ্যাক হবস,  স্যার গারফিল্ড সোবার্স,  সুনীল মনোহর গাভাস্কার,  জ্যাক কালিস,  অরবিন্দ ডি  সিলভা  নামের ক্রিকেট নক্ষত্রের এলিট ক্লাবে। তারা সবাই নিজ নিজ দেশের হয়ে প্রথম ৫০০০ রানের মাইল ফলক অর্জন করেছিল।

 

লিখেছিলাম টেস্ট ক্রিকেট লাস্যময়ী রমণীর মতো। দেব দেবীরাও নাকি সুন্দরী রমণীর মন বুঝতে পারেন না। টেস্ট ক্রিকেটেও পরিণতি দেখার জন্য শেষ মুহূর্ত অপেক্ষা করতে হয়। বলা হয় গৌরবোজ্জ্বল অনিশ্চয়তার খেলা টেস্ট ক্রিকেট। এখনো ২৯ রানে পিছিয়ে থাকা শ্রীলংকার সামনে সুযোগ দেয়ালে পিঠ রেখে দলকে রক্ষা। তবে উইকেটে স্পিন ধরছে। তাইজুলের যে বলটিতে ফিরে যায় নৈশ প্রহরী এম্বালডেনিয়া সেটি অনেক বাক নিয়েছে। সাকিব, তাইজুল, নাঈম কিন্তু এই উইকেটে বাজ পাখি হয়ে যেতে পারে। দেখা যাক আশায় আশায় থাকি। তবে মনে হয় সোনালী সম্ভাবনা হাতছানি দিয়ে মিলিয়ে গেলো। শত রান কারী তামিম (১৩৩) এবং মুশফিকের (১০৫) আউট হবার ধরণ কিন্তু মনোপুত হয় নি।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

eleven + 19 =