নাটকের নাম নিয়ে মোশাররফের আপত্তি

কয়েক বছর ধরেই নাটক থেকে যেন মুখ ফিরিয়ে নিয়েছেন দর্শক। নাটকের ভাষা, মান নিয়ে অভিযোগের শেষ নেই। এমনকি নাটকের নাম নিয়েও আছে বিস্তর অভিযোগ। এবার নাটকের অদ্ভুত নাম নিয়ে আপত্তির কথা জানালেন অভিনেতা মোশাররফ করিম। অভিনেতার মতে, এখনকার নাটকের অধিকাংশ নাম ভালো না। কিছু ক্ষেত্রে শুটিংয়ের পরও নাম পরিবর্তন হয় বলে জানান তিনি।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে মোশাররফ করিম বলেন, ‘নাটকের অধিকাংশ নাম এখন ভালো না। অদ্ভুত সব নাম লক্ষ করা যাচ্ছে। আমি একবার একটি নাটকে অভিনয় করেছিলাম, তার নাম ছিল “বিরসকাব্য”। নাটকটি দেখার সময় খেয়াল করলাম নাম পরিবর্তন হয়ে গেছে। বিরসকাব্য বদলে রাখা হয়েছে “বউয়ের জ্বালা”।’

ব্যক্তিগতভাবে চেষ্টা করেও এই বিষয়গুলো ঠিক করতে পারেননি বলে জানান মোশাররফ করিম। ভিউ প্রবণতার কারণেই এমন হচ্ছে বলে মনে করেন তিনি। তবে এ ক্ষেত্রে শিল্পীদেরও দায় আছে বলে জানান মোশাররফ করিম।

অভিনেতা বলেন, ‘আমরা এখন ভিউয়ের জগতে ঢুকে গেছি। বিষয়টিকে অস্বীকারও করা যাচ্ছে না। তবে আমাদের একটা দায় আছে। আমি নিজেকে উপস্থাপন করতে চাই, কিন্তু আমার সত্তাকে বিসর্জন দিয়ে নয়, উলঙ্গ হয়ে নয়। একটা লোক দীর্ঘদিন গুড় খেয়ে এসেছে। লোকটা তো গুড় খায় তাকে গুড় দাও—এই কথাটা প্রযোজক বলতেই পারেন। কিন্তু একজন নির্মাতার বলা উচিত, লোকটা গুড় খায় কিন্তু আমি তাকে গুড়ের সন্দেশ খাওয়াব। শিল্পীর সেই দায়টা আছে।’

মোশাররফ করিম আরও বলেন, ‘কত সুন্দর সুন্দর নাম আমাদের এখানে দেখা যেত। শুধু নাটকে নয়, সিনেমাতেও। নামের মধ্যে সাহিত্যের একটা ছোঁয়া ছিল। সে জায়গা থেকে খুব সহজ জায়গায় চলে এসেছি আমরা। সাহিত্য থেকে নেমে মানুষের খুব কাছে চলে এসেছি। এটা সাহিত্যের ক্ষেত্রেও ঘটেছে। দিন শেষে শিল্পচর্চা মানুষের জন্যই। মানুষ যাতে কমিউনিকেট করতে পারে। এখন “মাথা গরম জামাই” বললে দ্রুত একটা চিত্র তৈরি করে নেয় দর্শক। এটা একটা অভ্যস্ততা। মাথা গরম জামাই নাম হতেই পারে। এর মধ্যে খারাপ কিংবা অশ্লীল কিছু নাই। ট্রেন্ডের কারণেই হয়তো এমন নামকরণ করা হচ্ছে। তবে ট্রেন্ডটা অবশ্যই যৌক্তিক হতে হবে।’

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

four + 5 =