পদ্মা সেতুতে দেড় হাজার কোটি টাকা টোল আদায়

২২ মাসে পদ্মা সেতুতে এক হাজার ৫০০ কোটি টাকা টোল আদায় হয়েছে বলে জানিয়ে সেতু কর্তৃপক্ষ। শনিবার (২৭ এপ্রিল) পর্যন্ত এই টোল আদায় করা হয়। আর একই সময়ে সেতুর উভয় প্রান্ত দিয়ে প্রায় এক কোটি ১৩ লাখ যানবাহন পারাপার হয়েছে। রোববার (২৮ এপ্রিল) দুপুরে পদ্মা সেতুর সাইট অফিসের অতিরিক্ত পরিচালক আমিরুল হায়দার চৌধুরী এ তথ্য জানিয়েছেন।

সেতু কর্তৃপক্ষ জানায়, দেশের বৃহত্তম ওই সেতু চালু হওয়ার পর থেকে গতকাল শনিবার পর্যন্ত এক হাজার ৫০২ কোটি ৬২ লাখ ১৫ হাজার ৯০০ টাকা টোল আদায় হয়েছে। এ পর্যন্ত সেতুর উভয় প্রান্ত দিয়ে ১ কোটি ১২ লাখ ৯১ হাজার ৯৫টি যানবাহন পারাপার হয়েছে। এর মধ্যে মাওয়া প্রান্ত দিয়ে যান পারাপার হয়েছে ৫৬ লাখ ১ হাজার ২৩২টি। আর জাজিরা প্রান্ত দিয়ে ৫৬ লাখ ৮৯ হাজার ৮৬৩টি যান পারাপার হয়েছে।

আমিরুল হায়দার চৌধুরী জানান, পদ্মা সেতু দিয়ে আশানুরূপ টোল আদায় অব্যাহত রয়েছে। সেতু চালু হওয়ার পর থেকে গতকাল শনিবার পর্যন্ত এক হাজার ৫০২ কোটি ৬২ লাখ ১৫ হাজার ৯০০ টাকা টোল আদায় করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ২০২২ সালের ২৫ জুন এক জমকালো অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে যানবাহন চলাচলের জন্য খুলে দেওয়া হয় বহুল প্রতীক্ষিত পদ্মা সেতু। দেশি-বিদেশি কূটনীতিক, রাজনীতিক ও সুশিল সমাজের ব্যক্তিদের সঙ্গে নিয়ে সর্বস্তরের মানুষের চলাচলের জন্য খুলে দেওয়া হয় পদ্মা সেতু। ২৫ জুন উদ্বোধন করা হলেও তার একদিন পর অর্থাৎ ২৬ জুন থেকে সেতু দিয়ে যানবাহন চলাচল শুরু করা হয়।

সেতুর সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের সময় বলা হয়েছিল, দিনে গাড়ি যাতায়াতের হিসাব অনুযায়ী ২৫ থেকে ২৬ বছরের মধ্যে টোলের আয় থেকে সেতুর নির্মাণ ব্যয় তুলে আনা সম্ভব হবে। পদ্মা বহুমুখী সেতু নির্মাণ প্রকল্পের পরিচালক মো. শফিকুল ইসলাম জানিয়েছেন, যে লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল তার টোল আদায়ে তার চেয়ে বেশি এগিয়ে। এতে দেখা যায় নির্ধারিত সময়ের আগেই পদ্মাসেতু সেতুর খরচ তুলে আনা সম্ভব হবে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

15 + 10 =