প্রথম দিন শেষে ব্যাকফুটে বাংলাদেশ

সালেক সুফী: পোর্ট এলিজাবেথ টেস্টে প্রথম দিন শেষে দক্ষিণ আফ্রিকার স্কোর ২৭৮/৫। বাংলাদেশের খেলার গতি-প্রকৃতি জানি বলেই বলছি আজ যদি লাঞ্চের আগেই ওদের ৩৩০ রানে সীমিত রাখা না যায় বাংলাদেশ হয়তো চার দিনের বেশি ম্যাচকে টেনে নিতে পারবে না। বলবো না বাংলাদেশ সারাদিন খারাপ বোলিং করেছে।  কিন্তু শুরুতেই ডিআরএস না নেওয়া এবং লাঞ্চের আগে এবাদত, খালেদের ক্রমাগত খাটো লেন্থের বোলিং এলগার, পেটারসনকে বড় ইনিনংস গড়ার সুযোগ করে দেয়।

যাহোক প্রথম টেস্টে উপেক্ষিত বাংলাদেশের অন্যতম সেরা টেস্ট ম্যাচ বোলার তাইজুল দুইজনকে ফিরিয়ে দলকে ম্যাচে রেখেছে। স্বাগতিক দলের এই মাঠে প্রথম ইনিংস স্কোর ৩৫৯ এর দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। আশা করি আজ সকালে দ্রুত উইকেট নিয়ে ওদের ইনিংস সংক্ষিপ্ত করবে বাংলাদেশ। দক্ষিণ আফ্রিকা কোনো ভাবে ৪০০ কাছাকাছি পৌঁছে গেলে হালে পানি পাবে না বাংলাদেশ।

বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সংকট মোমিনুল, মুশফিকের বাটে রান খরা।  জানিনা আজ  ওরা কি করবে? তামিম বেশ কিছুদিন পরে ফিরবে।  তার দিকেও চেয়ে থাকবে দল।  কিন্তু সময় যতই যাবে উইকেটে ব্যাট করা কঠিন হয়ে যাবে। প্রথম ইনিংসে এগিয়ে থাকা দল ম্যাচ বাড়তি সুবিধা পাবে। চতুর্থ ইনিংসে ব্যাট করা সহজ হবে না।

চার বোলার নিয়ে খেলে প্রতিদ্বন্দ্বিতা মুখর খেলায় টেস্ট জয় করা অনেক অনেক কঠিন। দেখে-শুনে ব্যাটিং করলে অন্তত প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশ ৩৫০-৪০০ রান করতে পারবে। তাহলে অন্তত হোয়াইট ওয়াশ এড়ানো যাবে।  বাংলাদেশের জন্য শুভকামনা রইলো।

যে ফলাফল হোক, বাংলাদেশের টেস্ট ম্যাচের জন্য নতুন অধিনায়ক খুঁজে নেয়া উচিত। সাকিবকে অধিনায়ক করার কোনো কারিগরি অসুবিধা না থাকলে ওকে অধিনায়ক এবং মেহেদী মিরাজকে সহ অধিনায়ক করা যেতে পারে। মুশফিকের টেস্ট ক্যারিয়ারের গোধূলি বেলা ঘনিয়ে আসছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

19 − 19 =