ফেলুদা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের আজ জন্মদিন

কিংবদন্তী অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের আজ জন্মদিন। তিনি ১৯৩৫ সালের ১৯ জানুয়ারি নদীয়া জেলার কৃষ্ণনগরে জন্মগ্রহণ করেন। পিতা মোহিত কুমার চট্টোপাধ্যায় আর মাতা আশালতা চট্টোপাধ্যায়।ছেলেবেলা থেকেই তার অভিনয়ে আগ্রহ এবং এর পাশাপাশি বই পড়ার প্রতি টান। তার কলেজ জীবনে শিশির কুমার ভাদুড়ির সান্নিধ্য লাভ জীবনের একটি উল্লেখযোগ্য ঘটনা।

সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে সাহিত্য নিয়ে পড়াশোনা করেন। ১৯৫৯ সালে তিনি প্রথম সত্যজিৎ রায়ের পরিচালনায় ‘অপুর সংসার’ ছবিতে অভিনয় করেন।

তিনি মৃণাল সেন, তপন সিংহ, অজয় করের মত প্রখ্যাত পরিচালকদের সঙ্গেও কাজ করেন। তার অভিনীত চরিত্রগুলোর ভিতর সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং দর্শক সমাদ্রিত হল ‘ফেলুদা’। তিনি সত্যজিৎ রায়ের পরিচালনায় সোনার কেল্লা এবং জয়বাবা ফেলুনাথ ছবিতে ফেলুদার ভূমিকায় অভিনয় করে দর্শক হৃদয়ে স্থায়ীভাবে স্থান করে নিয়েছেন।

সিনেমা ছাড়াও তিনি বহু নাটক, যাত্রা এবং টেলিভিশন ধারাবাহিকে অভিনয় করেছেন। আর মঞ্চনাটকেও তার ছিল পদচারণা। অভিনয় ছাড়াও নাটক ও কবিতা লিখেছেন অনেক। তিনি একজন উঁচু দরের আবৃত্তিকার। কিংবদন্তি অভিনেতা, এই পরিচয়টির পাশেই স্বতন্ত্র আলো নিয়ে দাঁড়িয়ে তার কবি পরিচয়।

সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় তার জীবনের প্রায় পুরোটাই বিলিয়ে দিয়েছেন বাংলা চলচ্চিত্রের জন্য। তিনি তার রক্ত মাংসে চলচিত্রকে ধারণ করেছেন একজন সত্যিকারের শক্তিমান অভিনেতা হিসেবে।সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় বিখ্যাত চলচ্চিত্র পরিচালক সত্যজিৎ রায়ের ৩৪টি সিনেমার ভিতর ১৪টিতে অভিনয় করেছেন। সত্যজিৎ রায় নির্মিত বিভিন্ন ছবিতে বিভিন্ন চরিত্রে আবির্ভূত হন। জনশ্রুতি আছে যে, তার অভিনীত কিছু কিছু চরিত্র দেখে ধারণা করা হয় যে তাকে মাথায় রেখেই গল্প বা চিত্রনাট্যগুলো তৈরি করা হয়।

সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় অভিনীত চরিত্রগুলোর মধ্যে সব থেকে জনপ্রিয় হল ফেলুদা। প্রথমে ফেলুদা চরিত্রে তার চেয়েও ভাল কাউকে নেয়ার ইচ্ছে থাকলেও তার অভিনীত ফেলুদার প্রথম ছবি ‘সোনার কেল্লা’ রিলিজ হওয়ার পর সত্যজিৎ রায় অকপটে স্বীকার করেন যে, তার চেয়ে (সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়) ভাল আর কেউ ছবিটি করতে পারতেন না।

শুধু অভিনয় নয়, এমনকি আবৃত্তি কিংবা লেখালেখিও নয়, গত পাঁচ দশক ধরে নিরন্তর ছবিও এঁকে চলেছেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। সে সব পেন্টিং, স্কেস এর প্রদর্শনী হয়েছে ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর কালচারাল রিলেশনেসে।

পদ্মভূষণ, সঙ্গীত নাটক একাডেমি, দাদা সাহেব ফালকেসহ একাধিক পুরস্কারে ভূষিত এই কিংবদান্তি অভিনেতার  ‘রাজা লিয়ার’ এর নাম ভূমিকায় তার অনবদ্য অভিনয় সকল মহলে সমাদৃত হয়েছিল। পাশাপাশি যৌবনে নির্মাল্য আচার্যের সঙ্গে ‘এক্ষণ’ সাহিত্যপত্র সম্পাদনা এবং এখনো কাজের ফাঁকে কবিতা রচনা করতেন নিয়মিত। ১৫ নভেম্বর ২০২০ দুপুরে না ফেরার দেশে পাড়ি দেন বাঙালির আদি অকৃত্রিম ‘ফেলুদা’।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

4 × 1 =