বাদল রহমানের প্রয়াণ দিবসে বই প্রকাশ হচ্ছে

মুক্তিযোদ্ধা, চলচ্চিত্রকার, লেখক ও বাংলাদেশের চলচ্চিত্র সংসদ আন্দোলনের অন্যতম পথিকৃৎ বাদল রহমানের ১২তম প্রয়াণ দিবস আগামী ১১ জুন। ২০১০ সালের ১১ জুন বাদল রহমান ৬২ বছর বয়সে প্রয়াত হন। চলচ্চিত্রকার বাদল রহমান বাংলাদেশের প্রথম শিশুতোষ চলচ্চিত্রের নির্মাতা এবং চলচ্চিত্র শিক্ষক ছিলেন।

গত শতাব্দীর ষাটের দশকের উত্তাল রাজনৈতিক আন্দোলন থেকে শুরু করে মুক্তিযুদ্ধ এবং পরবর্তী সময়ে স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে ছিলেন কখনও কর্মী, কখনও সম্মুখ সারির সাংস্কৃতিক নেতা ও সংগঠক হিসেবেও তিনি সমাদৃত। চলচ্চিত্র শিক্ষক হিসেবে চলচ্চিত্রকার বাদল রহমান বাংলাদেশে চলচ্চিত্র শিক্ষার প্রসারে রেখেছেন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা। তিনি আজীবন দেশের চলচ্চিত্র সংসদ আন্দোলনের সাথে যুক্ত ছিলেন নেতৃত্বের ভূমিকায়।

ম্যুভিয়ানা ফিল্ম সোসাইটি প্রতি বছরের মত এবছরও চলচ্চিত্রকার বাদল রহমানকে স্মরণ করে আয়োজন করেছে বাদল রহমান স্মরণ অনুষ্ঠান। এ বছর বাদল রহমান স্মরণ আয়োজনে ‘মুখোমুখি বাদল রহমান’ গ্রন্থের প্রকাশনা অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে।

চলচ্চিত্র নির্মাতা, লেখক ও সংগঠক বেলায়াত হোসেন মামুনের সাক্ষাৎকারগ্রন্থ ‘মুখোমুখি বাদল রহমান’। এ গ্রন্থটিতে চলচ্চিত্রকার বাদল রহমানের সাথে বেলায়াত হোসেন মামুনের কথোপকথনের উঠে এসেছে বাদল রহমানের জীবন এবং বাংলাদেশের পঞ্চাশ, ষাট, সত্তরের দশকের উত্তাল সময়। যে সময়ে গঠিত হয়েছে বাংলাদেশের স্বাধিকার আন্দোলন, মুক্ত হয়েছে দেশ। এই গ্রন্থে মুক্তিযুদ্ধ, চলচ্চিত্র ও সংস্কৃতির রাজনৈতিক বিচারের প্রশ্নে চলচ্চিত্রকার বাদল রহমান ব্যক্তিক ইতিহাসের ঘটনাক্রম থেকে জাতীয় ইতিহাস উন্মোচন করেছেন।

কোনো ব্যক্তি যখন ইতিহাস নির্মাণের উপায় ও উপকরণ হয়ে ওঠেন তখন তার ‘ব্যক্তিগত’ যাপনই জাতীয় স্মৃতির আকর হয়ে ওঠে। ‘মুখোমুখি বাদল রহমান’ তেমনি এক জাতীয় স্মৃতির আকরগ্রন্থ হয়ে উঠেছে। আর এই গ্রন্থ আগামী ১১ জুন প্রকাশিত হতে চলেছে। বইটি প্রকাশ করেছে কথাপ্রকাশ।

বাদল রহমানের প্রয়াণ দিবস উপলক্ষে বাদল রহমান স্মরণ ও ‘মুখোমুখি বাদল রহমান’ গ্রন্থের প্রকাশনা অনুষ্ঠান হবে আগামী ১১ জুন, শনিবার, বিকাল ৫টা ৩০ মিনিটে। এটি অনুষ্ঠিত হবে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার সম্মেলন কক্ষে। আয়োজনটি সকলের জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

জাগো নিউজ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

fourteen − 5 =