বাড়লো অনুদানের জন্য চিত্রনাট্য জমার সময়

গত ২৭ আগস্ট আহ্বান করা হয়েছিল ২০২০-২১ অর্থবছরে সরকারি অনুদানে পূর্ণদৈর্ঘ্য ও স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণের জন্য চিত্রনাট্য। তথ্য মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী সবশেষ সময় দেওয়া হয়েছিল ২৯ অক্টোবর পর্যন্ত। সে সময় বাড়িয়ে আগামী ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত করা হয়েছে।

তথ্য মন্ত্রণালয় ২৫ অক্টোবর এ সময় বৃদ্ধির কথা জানিয়েছে। বৈশ্বিক মহামারি করোনা পরিস্থিতির কারণে আগে প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তিতে উল্লিখিত শর্তাবলি অপরিবর্তিত রেখে পূর্ণাঙ্গ প্যাকেজ প্রস্তাব জমাদানের সময়সীমা বাড়ানো হয়েছে বলে জানায় মন্ত্রণালয়।

অনুদানের জন্য আবেদন করতে পারবেন দেশীয় নির্মাতা ও প্রযোজকেরা। বাংলাদেশের আবহমান সংস্কৃতিকে সমুন্নত রাখবে এবং একই সঙ্গে স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মানবিক মূল্যবোধসম্পন্ন জীবনমুখী, রুচিশীল ও শিল্পমানসমৃদ্ধ গল্পের চলচ্চিত্রকে প্রাধান্য দেওয়া হবে। অগ্রাধিকার পাবে সাহিত্যনির্ভর গল্প ও চিত্রনাট্য। এ ক্ষেত্রে মূল লেখকের অনুমতি নিতে হবে।

প্রযোজক, পরিচালক, চলচ্চিত্র ব্যক্তিত্ব ও সংশ্লিষ্ট বিষয়ে পেশাদার ব্যক্তিরাই কাহিনি জমা দিতে পারবেন। একই সঙ্গে নির্মাণের সার্বিক পরিকল্পনা, শিল্পী ও কলাকুশলীদের তালিকাসহ পূর্ণাঙ্গ প্রস্তাবের ১২টি কপি জমা দিতে হবে। জমা ছবি থেকে বাছাই করে অনুদানের জন্য নির্বাচন করা হবে ২০টি চিত্রনাট্য। তবে বিশেষ ক্ষেত্রে পূর্ণদৈর্ঘ্য ছবির সংখ্যা বাড়ানো হতে পারে।

চলচ্চিত্রের ক্ষেত্রে অবশ্যই একটি মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক ও স্বল্পদৈর্ঘ্যের ক্ষেত্রে একটি শিশুতোষ চলচ্চিত্র থাকতে হবে। এ ক্ষেত্রে উপযুক্ত ছবি পাওয়া না গেলে সংশ্লিষ্ট শাখার অনুদান স্থগিত থাকবে। প্রতিটি পূর্ণদৈর্ঘ্য ছবি সর্বোচ্চ ৭৫ লাখ এবং স্বল্পদৈর্ঘ্য ছবি পাবে ২০ লাখ টাকা। কোনো প্রযোজক পরপর দুই বছর অনুদান পাবেন না।

সারাবাংলা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

two × two =