মিলে গেল ‘শাকা লাকা বুম বুম’-এর ভবিষ্যদ্বাণী

নয়ের দশকে ম্যাজিক পেনসিলে ভর দিয়েই খুদেদের মন মাতিয়েছিল সঞ্জু।২০২২ সাল নিয়ে বেশ কিছু ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়েছিল শাকা লাকা বুম বুমে।আসলে ধারাবাহিকের চতুর্থ সিজনে টাইম ট্রাভেল করে শোর মূল চরিত্র সঞ্জু ভবিষ্যত সফর করেছিল।ওই শো-তে এমন কিছু জিনিস দেখানো হয়েছিল, যার সঙ্গে সত্যিই বর্তমানের সাদৃশ্য পাওয়া যায়।

শক্তিমান, সোন পরী, শরারত, হাতিম, করিশ্মা কা কারিশমার মতো টিভি শো-গুলির কথা আজও ভুলতে পারেনি নাইন্টিজ কিডরা। নয়ের দশকে আরও একটি ধারাবাহিক খুদেদের জীবনে ম্যাজিক নিয়ে এসেছিল। ম্যাজিক বললে কিঞ্চিৎ ভুল হয়। বরং ম্যাজিক পেনসিলে ভর দিয়েই খুদেদের মন মাতিয়েছিল সঞ্জু। ঠিক ধরেছেন, কথা হচ্ছে শাকা লাকা বুম বুম সিরিয়ালটির। ওই ধারাবাহিকে সঞ্জু (কিংশুক বৈদ্য) নামের একটি ছেলে তার এবং আশেপাশের মানুষজনের জীবনে আসা যে কোনও ঝড়ঝঞ্ঝা সে মিটিয়ে ফেলত ওই ম্যাজিক পেনসিল ব্যবহার করে।

কিন্তু, এত পুরনো একটি শো এর কথা আজ আবার ফিরল কেন? আসলে ওই ধারাবাহিক আজও প্রাসঙ্গিক। কারণ, ২০২২ সাল নিয়ে বেশ কিছু ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়েছিল শো-তে। আসলে ধারাবাহিকের চতুর্থ সিজনে টাইম ট্রাভেল করে শোর মূল চরিত্র সঞ্জু ভবিষ্যত সফর করেছিল। ২০০০ থেকে ২০০৪ এর মধ্যে ওই সিজন সম্প্রচারিত হয়েছিল। যেখানে এমন কিছু জিনিস দেখানো হয়েছিল, যার সঙ্গে সত্যিই বর্তমানের সাদৃশ্য পাওয়া যায়। কাকতালীয় হলেও ব্যাপারগুলি কিন্তু সত্যি। এবার প্রশ্ন কী কী মিল রয়েছে রিল আর রিয়েলে? আসুন দেখে নেওয়া যাক…

স্মার্ট ইলেকট্রনিক কার্ড

ভবিষ্যতের মাটিতে পা দেওয়ার পর সঞ্জু নিজের স্কুলে যায়। তখন তার কাছে চাওয়া হয় স্মার্ট ইলেকট্রনিক কার্ড। ২০২২ সালে ওই কার্ডটি আসলে নাগরিকদের পরিচয়পত্র হিসেবে ব্যবহৃত হবে, এমনটাই দেখানো হয়েছিল শোতে। এতক্ষণে নিশ্চয়ই বুঝতে পেরেছেন ওই স্মার্ট ইলেকট্রনিক কার্ডের সঙ্গে এনআইডির ভীষন মিল =

স্বয়ংক্রিয় গাড়ি

যারা শাকা লাকা বুম বুম ফ্যান, তাদের নিশ্চয়ই মনে আছে সঞ্জু ভয়েস কন্ট্রোলড ট্যাক্সি বুক করেছিল সে সময়। কিবোর্ড ব্যবহার করে গন্তব্যস্থল ইনপুট করেছিল সে। যখন ক্যাব আসে, তখন দেখা যায় সেটি চালক বিহীন। সম্প্রতি এরকমই ড্রাইভারলেস সেলফ ড্রাইভিং কার লঞ্চ করেছে ইলন মাস্কের সংস্থা টেসলা। পাশাপাশি, স্মার্ট ফোনের কিবোর্ড ব্যবহার করে আমরা অ্যাপক্যাব বুক করেই থাকি।

সার্ভেল্যান্স ক্যামেরা

শাকা লাকা বুম বুমে সার্ভেল্যান্স ক্যামেরার ব্যবহারও দেখানো হয়েছিল কিন্তু! ২০০০ সালে এই ধরনের ক্যামেরার ব্যবহার হত না ভারতে। কিন্তু, শো- তে দেখানো হয়েছিল, ২০২২ সালে অপরাধের হার কমানোর জন্য সিসি ক্যামেরা ব্যবহার করা হচ্ছে। বাস্তবেও তেমনটাই হয়। যেমনটা দেখানো হয়েছিল ধারাবাহিকে।

আই স্ক্যানার

চোখের স্ক্যান করে আজকাল ফোনের লক খোলা যায়। এমনকী বাড়িতে স্মার্ট লক সিস্টেম থাকলে, তা অপারেট করা যায় আই স্ক্যান করেই। ২০২২ সালে টাইম ট্রাভেল করার সময় সঞ্জুকেও প্রতিটি জিনিসের জন্য আই স্ক্যান করতে হয়েছিল। এমনকী তার নিজের বাড়িতে ঢোকার জন্যও তাকে ওই পদ্ধতির ব্যবহার করা হয়েছিল।

গুগল ম্যাপ

শাকা লাকা বুম বুমের চতুর্থ সিজনের একটি এপিসোডে এক সাইবার হ্যাকারকে খোঁজার জন্য বিশেষ ধরনের ট্র্যাকিং ডিভাইস ব্যবহার করা হয়েছিল। গাড়ির মধ্যে সতর্কতামূলক একটি ডিভাইসও ছিল। গুগল ম্যাপও আজ সেভাবেই কাজ করে, যেমনটা ওই শোতে দেখানো হয়েছিল। কাকতালীয় না?

এই সময়

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

1 × 5 =