মৃণালরূপে চমকে দিলেন চঞ্চল

প্রখ্যাত চলচ্চিত্র নির্মাতা মৃণাল সেনের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে ‘পদাতিক’ নামে সিনেমা বানিয়েছেন সৃজিত মুখার্জি। এ বায়োপিকে মৃণালের চরিত্রে আছেন বাংলাদেশের চঞ্চল চৌধুরী। টালিউডে এটিই চঞ্চলের প্রথম কাজ। গত বছর যখন চরিত্রের লুক প্রকাশ হয়, চমকে গিয়েছিল সবাই। হুবহু মৃণালের মতোই লাগছিল চঞ্চলকে। গতকাল মৃণালের জন্মদিনে প্রকাশ পেল সিনেমার টিজার। ১ মিনিট ৪০ সেকেন্ডের টিজারে মৃণালরূপে আরেকবার দর্শকদের চমকে দিলেন চঞ্চল।

টিজারের প্রথমেই উঠে এসেছে বাইশে শ্রাবণের ঘটনা। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের শেষযাত্রায় শামিল হতে রাস্তায় নেমেছিল লাখো জনতা। সেই ভিড়ে অসহায় এক লোক তার শিশুর মরদেহ নিয়ে এসেছে দাহ করতে। কিন্তু এত মানুষের মধ্যে সুযোগই পাচ্ছে না শ্মশান পর্যন্ত পৌঁছানোর। একপর্যায়ে মানুষের ভিড়ে লোকটা হারিয়ে ফেলে নিজের সন্তানের লাশ। দূর থেকে অসহায় চোখে এ দৃশ্য দেখেন তরুণ মৃণাল। নির্মাতা তাঁর বিভিন্ন লেখায় এ ঘটনার কথা বলেছেন। সেটিই উঠে এসেছে পদাতিকের টিজারে।

এরপর দেখানো হয় কখনো মৃণাল সম্পাদনার টেবিলে, কখনো নৌকায় বসে লেখায় নিমগ্ন, ক্যামেরার পেছনে তাঁর চিন্তিত মুখ, দু-একটা শুটিংয়ের দৃশ্য, উত্তাল রাজনীতি; এসব পেরিয়ে মৃণালকে দেখা যায় বিদেশের চলচ্চিত্র উৎসবে। তাঁর ব্যক্তিগত জীবনও ধরা পড়েছে। টিজার শেষ হয়েছে সেই ঐতিহাসিক দৃশ্য দিয়ে, যেখানে মৃণাল ফাঁকা রাস্তায় প্রায় শুয়ে পড়েছেন। পেছনে তাকিয়ে এক হাত উঁচু করে বলেন, ‘কাট’।

মৃণাল সেনের জন্মদিন উপলক্ষে গতকাল কলকাতার নন্দনে প্রকাশ করা হয় পদাতিকের টিজার। সেখানে সৃজিত মুখার্জি, মমতাশঙ্কর, মনামী ঘোষের সঙ্গে চঞ্চল চৌধুরীও উপস্থিত ছিলেন। টিজার প্রকাশের পর চঞ্চল চৌধুরী বলেন, ‘আমার জীবনে কোনো চরিত্রের জন্য এত স্ট্রাগল করতে হয়নি। কারণ আমি যে ধরনের চরিত্রে অভিনয় করি বা যেভাবে চরিত্র হয়ে উঠি; সেগুলো থেকে মৃণাল সেনের চরিত্র আলাদা।

ওই মানুষটিকে হুবহু ধারণ করা তো সম্ভব নয়। আর দেখতে এক রকম হলেও কিছু যায়-আসে না। হুবহু দেখতে অনেক মানুষ আছে। কিন্তু ভেতরের যে মৃণাল সেন, তাঁর যে ব্যক্তিত্ব; সেটা যদি আমি ফুটিয়ে তুলতে পারি, সেটাই সাফল্য। আমার ব্যক্তিগত ও পারিবারিক একটা দুঃসময় চলছিল তখন। শুটিংয়ের আগে আগে আমার বাবা মারা যান। সেই শোক বুকে চেপে রেখে কাজটি করেছি। যদি কিছু পেরে থাকি, সেটার কৃতিত্ব পরিচালক সৃজিত মুখার্জির।’ সিনেমাটি শিগগিরই মুক্তি পাবে বলে জানিয়েছে পদাতিকের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ফেন্ডস কমিউনিকেশন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

1 × five =