রবীন্দ্রসংগীত ‘বিকৃত’ করায় হিরো আলমের বিরুদ্ধে মানববন্ধন

সম্প্রতি রবীন্দ্রসংগীত বিকৃতভাবে গেয়েছেন আশরাফুল হোসেন আলম ওরফে হিরো আলম। এছাড়াও তিনি আরও অনেক জনপ্রিয় গান বিকৃতভাবে উপস্থাপন করেছেন। কবি গুরুর জন্ম কিংবা মৃত্যুবার্ষিকীতে যেখানে দেশের রাষ্ট্রপ্রধান ও সরকারপ্রধান বার্তা দেন, সেখানে তার সৃষ্টিকে বিকৃতভাবে উপস্থাপন বাংলা সংস্কৃতিকেই হেয় করা। এসব দাবি করে হিরো আলমের বিরুদ্ধে মামলা করার ঘোষণা দিয়েছে একটি সংগঠন।

মঙ্গলবার (১৪ জুন) বিকেলে রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে আয়োজিত প্রতিবাদ সভা ও মানববন্ধনে এই ঘোষণা দেন বাংলাদেশ অপসংস্কৃতি প্রতিরোধ সংস্থা নামের একটি সংগঠনের নেতারা।

প্রতিবাদ সভা ও মানববন্ধনে সংগঠনটির সিনিয়র সহসভাপতি এস এম সোহেল বলেন, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গান বাংলা সাংস্কৃতির এক অমূল্য সম্পদ। সেই গান হিরো আলম বিকৃতি করে আমাদের সাংস্কৃতিকে ছোট করেছেন। শুধু তাই নয়, তিনি তার কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতসহ বিশ্বে আমাদের দেশের, আমাদের সংস্কৃতির সুনাম ক্ষুণ্ন করছেন।

তিনি বলেন, কবি গুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সৃষ্টির মাধ্যমে বাংলা গান ও সংস্কৃতির বিকাশ ও মর্যাদার আসন পেয়েছে। কবি গুরুর জন্ম কিংবা মৃত্যুবার্ষিকীতে দেশের রাষ্ট্রপ্রধান ও সরকারপ্রধান যেখানে বার্তা দেন, সেই রবীন্দ্রসংগীতকেই বিকৃত করে বাংলার সংস্কৃতিকে বিকৃত করছেন হিরো আলম। তাই আমরা শিগগির তার বিরুদ্ধে মামলা করবো, যাতে এই ধরনের বিকৃত কাজ আর না করতে পারেন।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, সঙ্গীত না শিখে বিকৃতভাবে গেয়ে সেটা প্রচার করবে, হাসি-তামাশা করে সব কিছু এড়িয়ে যাওয়া যায় না। ধিক্কার জানাচ্ছি তাদের যারা হিরো আলমের গানে কমেন্ট করে বলেন তার আরও গান চাই। কেন এমনটা করেন? তাকে গান বিকৃতি করতে আরও উৎসাহিত করতে?

বক্তারা আরও বলেন, বাংলা সংস্কৃতিকে বাঁচানোর জন্য আমরা আরও কর্মসূচি গ্রহণ করবো। এটাই আমাদের শেষ নয়, হিরো আলমের মতো যারা বাংলা সংস্কৃতিকে বিকৃত করার জন্য কাজ করবে তাদের বিরুদ্ধে আমরা মাঠে নামবো।

জাগো নিউজ

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

10 + 12 =