রেকর্ড ভেঙেই চলেছে সুইফটের নতুন অ্যালবাম

মুক্তির আগেই সোশাল মিডিয়ায় গান ফাঁসের জন্য আলোচনায় এসেছিল মার্কিন পপ তারকা টেইলর সুইফটের ‘দ্য টর্চারড পোয়েটস ডিপার্টমেন্ট’। আর অ্যালবাম প্রকাশের পর একের পর এক রেকর্ড গড়ে চলছে গায়িকার একাদশ স্টুডিও অ্যালবামটি।

বিবিসি জানিয়েছে, যুক্তরাজ্যে গত সাত বছরের মধ্যে কোনো অ্যালবাম প্রকাশের প্রথম সপ্তাহে সবচেয়ে বেশি বিক্রি হওয়া অ্যালবাম হল ‘দ্য টর্চারড পোয়েটস ডিপার্টমেন্ট’।

৩১টি গানের এই অ্যালবাম সাত দিনে ইউকে চার্টে ২ লাখ ৭০ হাজার পয়েন্ট যোগ করে আগের অ্যালবাম ‘মিডনাইটস’কে টপকে গেছে। এর আগে ‘মিডনাইটস’ এক সপ্তাহে ২ লাখ ৪ হাজার পয়েন্ট অর্জন করেছিল।

বিবিসি লিখেছে, টেইলর সুইফট এখন নারী শিল্পীদের মধ্যে এমন উচ্চতায় পৌঁছেছেন যে তার নাম পপ তারকা ম্যাডোনার সঙ্গে উচ্চারিত হচ্ছে যুক্তরাজ্যের মাটিতে। কারণ ম্যাডোনা এবং সুইফট দুজনেরই ১২টি অ্যালবাম টপ চার্টে জায়গা করে নেয়।

এই দুজন ছাড়া মাত্র চারজন শিল্পী ও ব্যান্ড টপ চার্টে ইতিহাস গড়েছে। এর মধ্যে ‘দ্য বিটলস’ ১৬ বার, ‘দ্য রোলিং স্টোসন’ এবং রবি উইলিয়ামস ১৪ বার এবং এলভিস প্রিসলি ১৬ বার টপ চার্টে নাম লিখিয়েছেন।

গত ফেব্রুয়ারি মাসে গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ডের মঞ্চে সুইফট নিজের একাদশ অ্যালবাম প্রকাশের ঘোষণা দেন। এরপর থেকেই অপেক্ষার প্রহর গুনছিলেন ভক্তরা।

এরপর ১৯ এপ্রিল সকালে ‘দ্য টর্চারড পোয়েটস ডিপার্টমেন্ট’ প্রকাশেও ব্যতিক্রম কাণ্ড ঘটিয়েছেন সুইফট। প্রথমে ১৬টি ট্র্যাক প্রকাশিত হয়। এর ঘণ্টা দুয়েক পর ১৫টি ট্র্যাক আসে সুইফট অনুরাগীদের জন্য।

বলা হচ্ছে এই অ্যালবামে গায়িকা তার ব্যক্তিগত জীবনের দুটি অস্থির বছরের যাত্রা তুলে ধরেছেন। যেখানে সুইফট নিজের বিচ্ছেদ ও প্রাক্তনদের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করে ফুটিয়ে তুলেছেন বিরহ-বেদনার কাব্য। ‘দ্য টর্চারড পোয়েটস ডিপার্টমেন্ট’ নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার এসেছে গত কয়েক দিনে।

যুক্তরাষ্ট্রের সংগীতভিত্তিক অনলাইন সাময়িকী পিচফোর্কের সাংবাদিক অলিভিয়া হর্নের মতে, এই গানগুলো শুনে তার মনে হয়েছে সুইফট তার ‘হারিয়ে যাওয়া’ প্রতিভার অনেকটাই উদ্ধার করতে পেরেছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাগাজিন রোলিং স্টোনের সাংবাদিক লোরিশা পলের মন্তব্য আবার ভিন্ন। তিনি মনে করেন, সুইফট একটু দ্রুত গতিতে ছুটেছেন এই অ্যালবামে।

রোলিং স্টোনের আরেক সাংবাদিক রব শেফিল্ড অবশ্য তার সহকর্মীর সঙ্গে একমত নন। তার ভাষ্য, “দ্য টর্চারড পোয়েটস ডিপার্টমেন্ট’ নিঃসন্দেহে সুইফটের ব্যক্তিগত অনুভূতি বহন করে। এখানে শিল্পী বন্যভাবে, উচ্চাভিলাষী ভূমিকায় উপস্থিত হয়েছেন।“

সুইফট ভক্তদের ‘জাদু করতে জানে’- বলেছেন ব্রিটিশ অনলাইন নিউজেপেপার ইন্ডিপেনডেন্টের সাংবাদিক হেলেন ব্রাউন।

“সুইফট বহু মানুষকে ব্যক্তিগত অনুভূতি স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন গানগুলোর মাধ্যমে। “

সপ্তাহ শেষে দেখা গেছে, স্পটিফাইয়ে একদিনে সবচেয়ে বেশিবার স্ট্রিমিং করা অ্যালবাম হল সুইফটের ‘দ্য টর্চারড পোয়েটস ডিপার্টমেন্ট’। প্রকাশের পঞ্চম দিনে এটি বিলিয়নতম বার স্ট্রিমিং করা হয়েছিল।

সুইফট টপ চার্টে ১২ বার তার নাম লেখাতে সময় নিয়েছেন ১১ বছর ৬ মাস। শুরুটা হয়েছিল ২০১২ সালে ‘রেড’ অ্যালবাম দিয়ে। এখানেই তিনি বিটলস থেকে এগিয়ে। এই ব্রিটিশ ব্যান্ডের এই অর্জনে সময় লেগেছিল ১৪ বছর এক মাস।

যুক্তরাষ্ট্রে এ সপ্তাহে ‘দ্য টর্চারড পোয়েটস ডিপার্টমেন্ট’ এর ১ দশমিক ৮ মিলিয়নের বেশি কপি বিক্রি হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এছাড়া যুক্তরাজ্যের একক চার্টেও সুইফট এ সপ্তাহে এক নম্বরে আছেন।

চলতি গ্রীষ্মে ইউরোপে নতুন ট্যুরে নতুন অ্যালবামের গানগুলো সুইফট গাইবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

15 − 11 =