‘লালজমিন’ ৩০০তম মঞ্চায়ন হতে যাচ্ছে

মান্নান হীরা রচিত  নাটক ‘লালজমিন’। বুধবার (২৩ মার্চ) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় নিলীমা ইব্রাহিম মিলনায়তনে (মহিলা সমিতি বেইলি রোড) শুন্যন রেপর্টারি থিয়েটারের প্রযোজনায় বহুল প্রশংসিত এই নাটকটির ৩০০তম মঞ্চায়ন হতে যাচ্ছে। সুদীপ চক্রবর্তী নির্দেশিত ‘লালজমিন’ নাটকটিতে একক অভিনয় করেন মোমেনা চৌধুরী।

খ্যাতিমান এই অভিনেত্রী বলেন, ‘লালজমিনের ৩০০ তম মঞ্চায়ন ভাবতেই শিহরিত হচ্ছি। একজনমে একটি নাটক নিয়ে বাংলার ৬৪ জেলায় যাওয়া অজশ্র মানুষের ভালোবাসা পাওয়া, এ আমাদের অনেক বড় প্রাপ্তি। ৩৮ বছরের থিয়েটার জীবনে নানা প্রতিকূল-অনুকূল পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে আমার আজকের এই অর্জন।’

মোমেনা চৌধুরী বলেন, ‘এই অর্জনের পেছনে অনেকের ভুমিকা রয়েছে। আজ বার বার মনে পড়ছে এই নাটকের রচয়িতা মান্নান হীরা ভাইয়ের কথা। ‘লালজমিন’ নাটকে আমি একা অভিনয় করলেও এ যাবৎ অনেকে পেছনে থেকে কাজ করে আমাকে সহযোগিতা করে আসছেন। আজ এই আনন্দের দিনে নাটকটি মঞ্চায়নের আগে নেপথ্যের মানুষগুলোকে সম্মাননা জানানোর আয়োজন করেছি।’

চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা পুলিশদের আয়োজনে দর্শক বহুল প্রশংসিত নাটক ‘লালজমিন’-এর সর্বশেষ অর্থাৎ ২৯৯ তম মঞ্চায়ন হয়েছে গত রবিবার স্থানীয় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে।

২০১১ সালের ১৯ মে নাটমন্ডলে ‘লালজমিন’ নাটকটি প্রথম মঞ্চায়ন হয়। সেই থেকে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে ও বিদেশের মাটিতে একের পর এক নাটকটির মঞ্চায়ন হয়ে আসছে। ‘লালজমিন’ নাটকের গল্প মুক্তিযুদ্ধের একটি খন্ডচিত্রের বয়ান। মহান মুক্তিযুদ্ধে একজন কিশোরীর অংশগ্রহণ, গল্পের অগ্রগতির সঙ্গে সঙ্গে যুদ্ধের ভয়াবহতা, মেয়েটির ত্যাগ- সবশেষে স্বাধীনতা অর্জন, দর্শকদের এক নতুন অভিজ্ঞতার সম্মুখে দাঁড় করিয়ে দেয় ‘লালজমিন’।

মুক্তিযুদ্ধ ও যুদ্ধোত্তর এক নারীর সংগ্রামী জীবনের নাট্যপ্রকাশ ‘লালজমিন’। ১৩ পেরিয়ে ১৪ বছর ছুঁই ছুঁই এক কিশোরী কন্যার গল্প এটি। ১৪ বছর ছুঁই ছুঁই কিশোরীর দুই চোখ জুড়ে মানিক বিলের লাল পদ্মের জন্য প্রেম। সে তার কৈশোরেই শোনে বাবা-মায়ের মধ্যরাতের গুঞ্জন। শুধু দুটি শব্দ কিশোরীর মস্তিষ্কে আর মনে জেগে থাকে, মুক্তি-স্বাধীনতা। বাবা যুদ্ধে চলে যান অগোচরে।

এরপর কিশোরীও নানা কৌশলে যুদ্ধে যাওয়ার আয়োজন করে। বয়স তাকে অনুমোদন দেয় না। এরপর যুক্ত হয়েছে বিগত ৪২ বছরে বাংলাদেশের যুদ্ধোত্তর সেই ঘাতক দালালদের বৃত্তান্ত ও একজন মুক্তিযোদ্ধা নারীর উপলব্ধি। যা দর্শকদের বর্তমানের মুখোমুখি দাঁড় করিয়ে প্রশ্নবাণে জর্জরিত করে। নাটটিতে মোমেনা চৌধুরীর একক অভিনয় দর্শক-শ্রোতার মন ছুঁয়ে যায়।

ঢাকাটাইমস

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

five × one =