শহীদুল ইসলাম খোকনের জন্মদিন আজ

ঢাকাই চলচ্চিত্রের গুণী নির্মাতা শহীদুল ইসলাম খোকন। জীবদ্দশায় চলচ্চিত্র পরিচালনার পাশাপাশি প্রযোজনাও করেছেন। ছিলেন পরিচালক সমিতির সভাপতি। ৮০-৯০ দশকের নন্দিত এই নির্মাতার আজ জন্মদিন। বিশেষ এই দিনে তার পরিবার মিলাদ ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করেছেন বলে জানা যায়।

শহীদুল ইসলাম খোকন মুখগহ্বরে মটর নিউরো ডিজিজে আক্রান্ত হলে ২০১৪ সালে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য আমেরিকার ভেলবিউ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সর্বশেষ এরপর রাজধানীর একটি হাসপাতালে দীর্ঘদিন চিকিৎসা শেষে ৪ এপ্রিল শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

প্রযোজক-অভিনেতা মাসুদ পারভেজের সহকারী হিসেবে চলচ্চিত্র ক্যারিয়ার শুরু করেন শহীদুল ইসলাম খোকন। টানা দশ বছর মাসুদ পারভেজের প্রধান সহকারী পরিচালক ছিলেন খোকন। পরে ‘পদ্মগোখরা’ সিনেমার মাধ্যমে পরিচালক হিসেবে অভিষেক হয় তার। ১৯৮৬ সালে পরিচালক মাসুদ পারভেজ ‘লড়াকু’ শিরোনামে সিনেমা পরিচালনার দায়িত্ব দেন খোকনের হাতে। মার্শাল আর্ট হিরো রুবেলের পর্দায় অভিষেক হয় এই নির্মাতার হাত ধরে।

‘লড়াকু’ সিনেমার পর দুজনকেই আর পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি। এই নির্মাতা বাংলাদেশের প্রথম সিক্যুয়েল মুভি ‘চেহারা’, ডান্সিং কুংফু, ফুটবল কুংফু, আর্থ কুংফুসহ নিত্যনতুন মার্শাল আর্ট উপহার দিয়েছেন। সবগুলো সিনেমার নায়ক ছিলেন রুবেল। আনন্দের বিষয় হলো মুক্তির পর সবগুলোই সিনেমাই দর্শকপ্রিয়তা লাভ করেছিল।

শহীদুল ইসলাম খোকন ‘বীরপুরুষ’, ‘বজ্রমুষ্ঠি’, ‘বিপ্লব’, ‘অকর্মা’, ‘সতর্ক শয়তান’, ‘বিষদাঁত’, ‘টপ রংবাজ’, উত্থান পতন’-এর মতো মার্শাল আর্ট নির্ভর চলচ্চিত্র উপহার দিয়েছেন। এছাড়াও কিছুটা কমেডি ধাঁচের ‘ঘাতক’, ‘পালাবি কোথায়’, ‘ভণ্ড’ কিংবা নীরিক্ষাধর্মী ‘লাল সবুজ’, ‘ম্যাডাম ফুলি’সহ দুর্দান্ত সব ব্যবসাসফল চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছেন তিনি।

রাইজিংবিডি

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

five × 2 =