শেষ পর্যন্ত দক্ষিণ আফ্রিকায় খেলছেন সাকিব

এবারের দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে সাকিব আল হাসানের যাওয়া না যাওয়া নিয়ে নানা নাটকীয়তার পর এলো নতুন ইতিবাচক ঘোষণা। খেলতে রাজি হয়েছেন অভিজ্ঞ এই অলরাউন্ডার। মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসানের সঙ্গে বৈঠক শেষে সাকিব নিজেই সিদ্ধান্তটি জানান। রোববার রাতে দক্ষিণ আফ্রিকার উদ্দেশে রওনা দিবেন তিনি।তিনটি ওয়ানডে ও দুটি টেস্ট খেলতে এরই মধ্যে তিন ভাগে ভাগ হয়ে রওনা দিয়েছে বাংলাদেশ দল।

সফরটিতে সাকিবের খেলা নিয়ে অনিশ্চয়তা ছিল অনেক আগে থেকেই। তবে আইপিএলে তিনি দল না পেলে তার এখানে খেলার সম্ভাবনা তৈরি হয়। পরে তাকে রেখেই সিরিজ দুটির জন্য দল ঘোষণা করা হয়।

গত রোববার ব্যক্তিগত কাজে দুবাই যাওয়ার আগে বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান জালাল ইউনুসকে ফোন করে সাকিব বলেছিলেন, এই মুহূর্তে তিনি ক্রিকেট উপভোগ করছেন না এবং দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে যেতে চান না। পরে সাংবাদিকদেরও নিজের অবস্থান নিয়ে বিস্তারিত বলেন।

সাকিবের সিদ্ধান্তটি নিয়ে শুরু হয় সমালোচনার ঢেউ। তিন দিন পর সাকিবের চাওয়া পূরণের সিদ্ধান্তই নেওয়া হয় বোর্ডের পক্ষ থেকে। গত বুধবার জালাল ইউনুস সংবাদ সম্মেলন করে সাকিবকে আগামী ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত সব ধরনের ক্রিকেট থেকে ‘বিশ্রাম’ দেওয়ার কথা জানান।তিন দিনের মধ্যে সবকিছু আবার পাল্টে গেল। ‘শারীরিক ও মানসিক অসুস্থতা’ কাটিয়ে উঠে খেলতে রাজি হয়ে গেলেন সাকিব।

আগামী ১৮ মার্চ শুরু হবে ওয়ানডে সিরিজ। ৫০ ওভারের পরের দুটি ম্যাচ হবে ২০ ও ২৩ মার্চ। আর প্রথম টেস্ট শুরু হবে ৩১ মার্চ। দ্বিতীয় টেস্ট শুরু ৮ এপ্রিল।

বিডিনিউজ

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

five × three =