হামাসকে যুদ্ধবিরতিতে সম্মত হওয়ার আহ্বান ব্লিঙ্কেনের

যে কোনো ধরনের যুদ্ধবিরতির পরও সেনাবাহিনী ফিলিস্তিনি হামাসের বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যাবে- ইসরায়েলের এমন হুঁশিয়ারি  সত্ত্বেও হামাসকে গাজা যুদ্ধবিরতি পরিকল্পনা মেনে নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন শীর্ষ মার্কিন কূটনীতিক এন্টনি ব্লিঙ্কেন। মধ্যস্থতাকারীদের যুদ্ধবিরতি চুক্তিটিতে  ৪০ দিনের জন্য যুদ্ধ বন্ধ  ও ডজন ডজন জিম্মি বিনিময়ের মাধ্যমে ফিলিস্তিনি বন্দীর মুক্তির প্রস্তাব করবে। হামাস বলেছে, খুব অল্প সময়ের মধ্যে তারা প্রস্তাবটিতে সাড়া দেবে। অক্টোবরে যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকে মধ্যপ্রাচ্যে তার সপ্তম সংকট সফরে ইসরায়েলে অবস্থানকালে বুধবার ব্লিঙ্কেন বলেন, হামাসকে হ্যাঁ বলতে হবে এবং তা দরকার। খবর এএফপি’র।

ব্লিঙ্কেন পরে বলেন, “হামাস যদি প্রকৃতপক্ষে ফিলিস্তিনি জনগণের কথা চিন্তা করে ও তাদের দুর্ভোগের অবিলম্বে উপশম  দেখতে চায়, তবে চুক্তিটি করা উচিত।” নিরওজ কিবুতজের পাশাপাশি গাজা ও আশদোদ বন্দর সংলগ্ন ইসরায়েলের কেরাম শালোম সীমান্ত ক্রসিং পরিদর্শন করার পর ব্লিঙ্কেন একথা বলেন। নিরওজ কিবুতজ অঞ্চলটিতে হামাস ৭ অক্টোবর হামলা চালায়। ইসরাইল বলেছে, সাহায্য চালানের জন্য কেরাম শালোম সীমান্ত ক্রসিংটি ব্যবহৃত হবে।

হামাসের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ওসামা হামদান বুধবার গভীর রাতে এএফপিকে বলেন, যুদ্ধবিরতির প্রস্তাবে আলোচনার অবস্থান আপাতত “নেতিবাচক। তবে  আলোচনাটি এখনো অব্যাহত রয়েছে।

বাসস

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

4 + three =