হায়দার হোসেনের দ্বিতীয়বার হার্ট অ্যাটাক

দ্বিতীয়বার হার্ট অ্যাটাক করেছেন গীতিকার, সুরকার ও সংগীতশিল্পী হায়দার হোসেন। বর্তমানে তিনি রাজধানী বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার একটি হাসপাতালে ভর্তি আছেন। গতকাল বুধবার (৮ জুন) দুপুরে গায়কের হার্টে রিং পরানো হয়েছে বলে সংবাদমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন হায়দার হোসেনের স্ত্রী নুসরাত জাহান শিম্মি।

তিনি জানান, গত মঙ্গলবার দুপুরে হায়দারের বুকে ব্যথা শুরু হয়। ব্যথা বাড়লে দুপুরের পর হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। এদিন রাত সাড়ে ৯টা থেকে ১০টার মধ্যে হার্ট অ্যাটাক করেন বলে ধারণা করছেন চিকিৎসকেরা।

এর আগে ২০১৬ সালে যুক্তরাষ্ট্রে আরেকবার হার্ট অ্যাটাক হয়েছিল হায়দার হোসেনের। তখন দুটি রিং পরানো হয়। বাংলাদেশ বিমান বাহিনীতে একজন বিমান প্রকৌশলী হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন হায়দার হোসেন। ১৯৭৯ সাল থেকে তিনি সংগীতের সঙ্গেও সম্পৃক্ত।

বিখ্যাত সুরকার আলম খানের সঙ্গে প্লেব্যাকে গিটার বাজাতেন তিনি এবং এরপর পপ সম্রাট আজম খানের সঙ্গেও কাজ করতেন। ৫৮ বছর বয়সী এই গায়ক কয়েক বছর ধরে গানে অনিয়মিত হয়ে পড়েছেন।

উইনিং ব্যান্ডের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা হায়দার হোসেনের লেখা ‘মন কী যে চায় বলো’ গানটি আজও শ্রোতাদের রোমাঞ্চিত করে। তার সলো ক্যারিয়ারে জনপ্রিয়তা পাওয়া গানের মধ্যে রয়েছে ‘৩০ বছর পরেও আমি স্বাধীনতাটাকে খুঁজছি’ও ‘আমি ফাইসা গেছি’ ।

দেশ রূপান্তর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

four × 1 =