হুমায়ূন আহমেদের জন্মদিনে শাওনের উপহার

কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের লেখা বেশকিছু গান জনপ্রিয়তা পেয়েছে তার গল্প, উপন্যাস, নাটক, সিনেমার মতোই। সাবলীল বাক্যে নদীর মতো বয়ে চলা এসব গানের মধ্যে অন্যতম জনপ্রিয় ‘যদি মন কাঁদে/ তুমি চলে এসো এক বরষায়’ গানটি। এসআই টুটুলের সুরে গানটি গেয়েছিলেন হুমায়ূন আহমেদের সহধর্মিণী মেহের আফরোজ শাওন। এখনো বর্ষা, বসন্ত কিংবা শীত নয়, সারা বছর গানটা শুনে থাকেন শ্রোতারা।
শাওনের অভিমান ভাঙানোর জন্য গানটি লিখেছিলেন হিমু, মিসির আলীর স্রষ্টা। এবার এ গানের একটি নতুন সংস্করণ পেতে যাচ্ছে হুমায়ূন ভক্তরা। ১৩ নভেম্বর হুমায়ূন আহমেদের ৭৩তম জন্মদিন উপলক্ষে মুক্তি পাবে ‘একটু পরে নামিবে আঁধার বেলাও ফুরিয়ে যাবে/ সত্যি কি তুমি আমার নৃত্যের সাথী হবে?’ গানটি গেয়েছেন শাওন। তবে গানটি হুমায়ূন আহমেদের লেখা না। লিখেছেন, লন্ডন প্রবাসী প্রফেসর মোহাম্মদ ফজল। ‘যদি মন কাঁদে/তুমি চলে এসো এক বরষায়’ গানের মতো এ গানেও সুর দেয়ার পাশাপাশি সংগীত পরিচালনা করেছেন এসআই টুটুল। গানটির মিউজিক ভিডিও পরিচালনা ও সিনেমাটোগ্রাফি করেছেন খায়ের খন্দকার। সম্প্রতি নুহাশ পল্লীতে গানটির চিত্রায়ণ সম্পন্ন হয়েছে।
নতুন এ গান প্রসঙ্গে মেহের আফরোজ শাওন বলেন, ‘যদি মন কাঁদে আমার জীবনে খুব গুরুত্বপূর্ণ গান। শুধু এজন্য নয় যে শ্রোতারা গানটি অসম্ভব পছন্দ করেছেন। গানটির সঙ্গে আমার অনেক স্মৃতি জড়িত। গানটিতে যখন ভয়েস দিই তখন নিষাদ হুমায়ূন আমার পেটে। গানটির কোনো মিউজিক ভিডিও করিনি আমরা। শ্রোতাদের এত ভালোবাসা পেয়েছি যে অভিভূত বললে আসলে কম বলা হয়। আমি সৌভাগ্যবান এমন একটি গান গাইতে পেরেছি।’
শাওন বলেন, ‘অনেক চমত্কার গান আমাদের মিউজিক ইন্ডাস্ট্রিতে আছে। সব গান আসলে শ্রোতাপ্রিয় হয় না, ভালোবাসা পায় না। আমি সংশ্লিষ্ট সবার কাছে কৃতজ্ঞ। কিন্তু এ গানটির দ্বিতীয় অধ্যায় হতে পারে, এটি আমার মাথায় কখনো আসেনি। হঠাৎ করেই মোহাম্মদ ফজল আমাকে বলেন, গানটির দ্বিতীয় অধ্যায় করা যেতে পারে। প্রথমে বিষয়টি হেলাফেলা করেছিলাম। কিন্তু ভদ্রলোক হাল ছাড়েননি। তিনি বারবার আমাকে জানানোর পর দেখলাম গানটির মধ্যে হূদয়ের টান আছে।’
তিনি আরো বলেন, এসআই টুটুল গানটিতে অসম্ভব সুন্দর একটা সুর দিয়েছেন। আমরা মোহাম্মদ ফজলের আবেগের সঙ্গে মিলে ভালো কিছু তৈরি করতে পেরেছি বলে আমার ধারণা। গানের ভিডিও নির্মাতা খায়ের খন্দকার বলেন, ‘আমি সারপ্রাইজড। অসাধারণ একটি গান হয়েছে। আমি চেষ্টা করেছি গানটি ফুটিয়ে তোলার। আর বিষয় যেহেতু হুমায়ূন আহমেদ স্যার তাই অন্য রকম একটা রোমাঞ্চকর অনুভূতি কাজ করছে আমার মধ্যে। আশা করছি গানটি দর্শক-শ্রোতাদের ভালো লাগবে।’
মেহের আফরোজ শাওন নৃত্যশিল্পী হিসেবে বাংলাদেশী শিশুশিল্পীদের জন্য টেলিভিশন রিয়েলিটি শো নতুন কুঁড়িতে বিজয়ী হন। ১৯৯৬ সালে হুমায়ূন আহমেদের নক্ষত্রের রাত ধারাবাহিক নাটকে অভিনয়ের মাধ্যমে তিনি অভিনয়জীবন শুরু করেন। এরপর বেশকিছু নাটক, ধারাবাহিক ও চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। তার অভিনীত নাটক দর্শক মহলে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পায়। আজ রবিবার, সমুদ্র বিলাস প্রাইভেট লিমিটেড, উড়ে যায় বকপক্ষী নাটকে অনবদ্য অভিনয় করেছেন তিনি। এছাড়া শ্রাবণ মেঘের দিন, দুই দুয়ারী, চন্দ্রকথা, শ্যামল ছায়া, আমার আছে জল সিনেমাগুলোয় তার অভিনয় প্রশংসিত হয়েছে দর্শক-সমালোচকদের কাছে। ২০১৬ সালে কৃষ্ণপক্ষ নির্মাণের মধ্য দিয়ে চলচ্চিত্র নির্মাতা হিসেবে নাম লেখান। তার আগে কয়েকটি নাটক বানিয়েছিলেন। সিনেমায় গান গেয়ে পেয়েছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারও।
বণিক বার্তা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

twelve − 9 =