১০ কেজি ভাং ও ৯ কেজি গাঁজা ইঁদুরে খেয়েছে, দাবি পুলিশের

অভিযান চালিয়ে আসামিদের কাছ থেকে ১০ কেজি ভাং ও ৯ কেজি গাঁজা জব্দ করেছিল পুলিশ। কিন্তু মালখানায় রাখা সেসব আলামত ইঁদুর খেয়ে ও নষ্ট করে ফেলেছে বলে এমনটাই দাবি করেছে ভারতের ঝাড়খণ্ড রাজ্যের ধনবাদ জেলার একটি থানার পুলিশ।

পুলিশ বলেছে, আলামতের গাঁজা ও ভাং ইঁদুর নষ্ট করে ফেলায় সেগুলো আদালতে হাজির করা সম্ভব হয়নি। মামলা সংশ্লিষ্ট এক আইনজীবী গত রোববার বার্তা সংস্থা পিটিআই’কে এ তথ্য জানিয়েছেন।

জানা গেছে, ছয় বছর আগে জব্দ করা ভাং ও গাঁজা হাজির করার জন্য রাজগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে নির্দেশ দিয়েছিলো স্থানীয় আদালত। গত শনিবার প্রধান জেলা ও দায়রা জজ রাম শর্মার কাছে এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন জমা দেয় পুলিশ। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, থানার মালখানায় (স্টোর) মজুত করা মাদকদ্রব্য সম্পূর্ণ নষ্ট করে ফেলেছে ইঁদুর। এ ব্যাপারে থানায় একটি রিপোর্টও করা হয়েছিল।

গত ২০১৮ সালের ১৪ ডিসেম্বর ১০ কেজি ভাং ও ৯ কেজি গাঁজাসহ শম্ভু প্রসাদ আগারওয়াল ও তার ছেলেকে গ্রেপ্তার করে রাজগঞ্জ পুলিশ। তাদের বিরুদ্ধে থানায় এফআইআরও দায়ের করা হয়। বিচারকালে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা জয়প্রকাশ প্রসাদকে জব্দ করা ভাং ও গাঁজা ৬ এপ্রিল আদালতে হাজির করার নির্দেশ দেন বিচারক।

মামলায় আসামিপক্ষের আইনজীবী অভয় ভাট পিটিআই’কে বলেছেন, জয়প্রকাশ প্রসাদ গত শনিবার রাজগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার একটি আবেদন নিয়ে আদালতে হাজির হয়েছিলেন। তারা বলছেন, সব বাজেয়াপ্ত সামগ্রী নাকি ইঁদুরে নষ্ট করে ফেলেছে।

এদিকে, ওই আইনজীবীর দাবি, তার মক্কেলকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো হয়েছে। কারণ পুলিশ জব্দ করা জিনিসগুলো দেখাতে পারেনি।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

10 − 1 =