১২ ডিসেম্বর থেকে টেলিটকে পরীক্ষামূলক ফাইভ-জি

আগামী ১২ ডিসেম্বর থেকে দেশে পরীক্ষামূলকভাবে ফাইভ-জি চালু করবে রাষ্ট্রায়ত্ত্ব মোবাইল টেলিকম অপারেটর টেলিটক।শনিবার টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিখাতের সাংবাদিকদের সংগঠন টিআরএনবির সঙ্গে এক কর্মশালায় টেলিটকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী মো. শাহাব উদ্দিন এ কথা জানান।

তিনি জানান, এরপর ২০২২ সালের মধ্যে ঢাকায় ২০০টি বেস ট্রান্সসিভার স্থাপনের মাধ্যমে বাণিজ্যিক পরীক্ষামূলক কার্যক্রম চলবে। বাণিজিক্য পরীক্ষামূলক সময়ের পর ফাইভজির পূর্ণ সেবা কার্যক্রম চালু হবে।

তিনি আরও জানান, ফাইভ-জি চালুর জন্য এরইমধ্যে টেলিটক তিন হাজার ৫০০ মেগাহার্টজ ব্যান্ডে ৬০ মেগাহার্টজ বেতার তরঙ্গ বরাদ্দ পেয়েছে। ফাইভ-জি প্রকল্পের জন্য টেলিটক দুই হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ পেয়েছে সরকারের কাছ থেকে। এ প্রকল্পে প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি সরবরাহের জন্য উন্মুক্ত দরপত্র নীতি অনুসরণ করা হবে।

টেলিটকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জানান, টেলিটকের বিরুদ্ধে ঢালাওভাবে ভিওআইপি প্রযুক্তির অবৈধ ব্যবহারের অভিযোগ তোলা হচ্ছে। যা অবাস্তব এবং ভিত্তিহীন। তিনি ব্যাখা দিয়ে বলেন, প্রথমত, বর্তমানে টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তির বিশ্ব বাস্তবতায় বিশ্বজুড়েই সরাসরি ভয়েস কলের জন্য আন্তর্জাতিক কল টার্মিনেশন ক্রমাগত কমছে। কারণ মানুষ এখন ওটিটি অ্যাপ যেমন হোয়াটসঅ্যাপ, ভাইবার, মেসেঞ্জার বা এ জাতীয অ্যাপ ব্যবহার করছে। ফলে ভিওআইপি প্রযুক্তির অবৈধ ব্যবহারও এখন পুরোনো ইতিহাসে পরিণত হচ্ছে। এ বাস্তবতা না বুঝে অভিযোগ তোলা দুঃখজনক।

দেশ রূপান্তর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

twelve + 17 =