১৩ বছর পর ‘বন্দিদশা’ থেকে মুক্ত ব্রিটনি

বাবার কনজারভেটরশিপ থেকে ১৩ বছর পর মুক্ত হলেন মার্কিন পপ গায়িকা ব্রিটনি স্পিয়ার্স। বুধবার (২৯ সেপ্টেম্বর) এই মামলার রায় দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের একটি আদালত। এদিকে আদালতের রায় শোনার পর ব্রিটনি জানিয়েছেন, তিনি ভীষণ খুশি।

বিচারক ব্রেনডা পেনি জানিয়েছেন, যত দ্রুত সম্ভব ব্রিটনির বাবা জিমির পরিবর্তে অন্য কাউকে এই দায়িত্ব দেওয়া হোক। আর এটি অবশ্যই এই গায়িকার সম্মতিতে হতে হবে। চলতি বছরের মধ্যেই এটি কার্যকর করার আদেশ দিয়েছেন এই বিচারক।

২০০৮ সালে বিষণ্নতা ও অবসাদের কারণে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন ব্রিটনি। সেই সময় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কনজারভেটরশিপ আইনের অধীনে আদালতের আদেশে ব্রিটনির বাবা জিমিকে এই গায়িকার সব বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার অধিকার দেওয়া হয়। গত ১৩ বছর ধরে ব্রিটনি স্পিয়ার্সের জীবনযাত্রা ও আর্থিক সমস্ত কিছু নিয়ন্ত্রণ করছেন তার বাবা।

গত ২৩ জুন আদালতে ব্রিটনি জানান, যত দ্রুত সম্ভব এই ‘বন্দিদশা’ থেকে মুক্তি চান তিনি। তার অভিযোগ, ইচ্ছার বিরুদ্ধে তাকে জন্মনিয়ন্ত্রক ওষুধ খেতে বাধ্য করা হয়। শুধু তাই নয়, প্রেমিকের সঙ্গে বিয়ে করতে ও আবার সন্তান নিতেও তাকে বাধা দেওয়া হচ্ছে। এতে মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছেন তিনি। এই কনজারভেটরশিপ তার ভালোর চেয়ে খারাপই বেশি করছে।

ব্রিটনি দাবি করেছিলেন, তার বাবার কাছ থেকে কনজারভেটরশিপ বাতিল করে শুধুমাত্র ক্যালিফোর্নিয়ার ব্যক্তিগত সম্পদ রক্ষা প্রতিষ্ঠান বেসেমার ট্রাস্ট কোম্পানিকে দায়িত্ব দেওয়া হোক।

রাইজিংবিডি

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

nineteen − seven =