৫ পর্বের জন্য ২ লাখ রুপি ঘুষ দাবি, সারেগামাপা প্রতিযোগীর অভিযোগ

কদিন পরেই শুরু হবে ভারতীয় টেলিভিশন জি বাংলার জনপ্রিয় গানের রিয়্যালিটি শো ‘সারেগামাপা লিজেন্ডস’। ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গেছে বাছাই প্রক্রিয়া। তবে শুরু হওয়ার আগে থেকেই বিতর্ক। প্রতিযোগীর কাছে ঘুষ চাওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

কদিন আগেই এক প্রতিযোগী অভিযোগ আনেন সারেগামাপার গায়ক বর্তমান বিচারক গৌরব সরকারের বিরুদ্ধে। তাঁর দাবি ছিল, তিনি যখন গানের অডিশন দিচ্ছিলেন, তখন গৌরব তা না শুনে বসে বসে অন্য কারও সঙ্গে গল্প আর হাসাহাসি করছিলেন। এবার আরেকজনের দাবি, তাঁর কাছে চাওয়া হয়েছে টাকা।

হিন্দুস্তান টাইমস বাংলা জানিয়েছে, বিষয়টি ফেসবুকে সামনে আনা ব্যক্তির নাম সুপ্রিয়। তিনি ফেসবুকে লিখেছেন, ‘সারেগামাপার পাঁচটি পর্বের জন্য আমার কাছে দুই লাখ রুপি দাবি করা হয়। আমি কিছু বলতে চাই সবাইকে, এই টিভি শোটা নিয়ে অনেকের অনেক রকম ভরসা-আশা থাকে। অনেকেই অনেক দূর থেকে এই শোতে অডিশন দিতে আসে মনে একটা আশা নিয়ে। কিন্তু তারা এটা জানে না, এই ঝাঁ-চকচকে পর্দার পেছনের জঘন্য সত্যটা।’

টাকা চাওয়ার অভিযোগের কথায় সুপ্রিয় লিখেছে, ‘হ্যাঁ, ঠিকই দেখছ তোমরা। দ্বিতীয় রাউন্ডের অডিশন দেওয়ার পর আজ সন্ধ্যায় আমার কাছে ফোন আসে এবং আমার কাছ থেকে দুই লাখ রুপি ডিমান্ড করা হয়, সারেগামাপার পরবর্তী পাঁচটা পর্বের বিনিময়ে।’

‘আমি অবাক হয়েছিলাম, খারাপ ও লেগেছিল। কারণ, এত দিন ধরে যেটা চোখের সামনে টিভিতে দেখে এসেছি, তা সবটাই সাজানো আর টাকার বিনিময়। আমি তাদের না করে দিই। কারণ, এই পরিমাণ টাকা দেওয়া আমার পক্ষে সম্ভব ছিল না। এ রকম অভিজ্ঞতা আমার জীবনে প্রথম। বিশ্বাস উঠে গেল এসব জিনিসের ওপর থেকে।’, আরও লেখেন সুপ্রিয়।

পোস্টটি মুহূর্তেই হয় ভাইরাল। দেখা যায়, নেটিজেনদের বড় একটা অংশ সুপ্রিয়র পক্ষ নিয়েছেন। তাঁদের দাবি, সারেগামাপা লিজেন্ডকে বয়কট করা উচিত। সেখানে দুর্নীতির অভিযোগ উঠছে, ঘুষ চাওয়ার অভিযোগ উঠছে, এমন অবস্থায় এই শো আগে থেকেই ফিক্সড, সেই ব্যাপারে তাঁরা নিশ্চিত! তবে আরেকাংশ আবার মনে করেন, শুধু একটু জনপ্রিয়তা পেতে এমন দাবি করেছেন সুপ্রিয় নামে প্রোফাইল করা সেই ব্যক্তি। এত জনপ্রিয় একটা রিয়্যালিটি শোয়ের নাম নিয়ে নিজেকে জনপ্রিয় করার পরিকল্পনা। অনেকেই প্রমাণও চেয়েছেন সুপ্রিয়র কাছে।

এরপর বিষয়টি নিয়ে একটি লাইভ করেন সুপ্রিয়। যেখানে তাঁকে বলতে শোনা যায়, ‘আমি এপ্রিলের ২০ তারিখ বহরমপুরে অডিশন দিই। সিলেক্ট হই। ২৫ তারিখ আমাকে সেকেন্ড রাউন্ডের জন্য ডাকেন ডিডিআর স্টুডিওতে। বিচারকেরা আমার গান পছন্দ করেন। প্রশংসা করেন। শোনেনও তাঁরা আমার গান ধৈর্য নিয়ে। অনেকে দাবি করেছিলেন, অবহেলা করা হচ্ছে। গান শোনা হচ্ছে। আমার ক্ষেত্রে তা হয়নি। আমি একটা পজিটিভ পোস্টও করি। সেই পোস্টের দু-তিন দিনের মাথায় আমার কাছে অচেনা নম্বর থেকে ফোন আসে। বলে সারেগামাপা থেকে বলছি। একটু কায়দা করে এরা টাকা চায়। বলে, আপনি পরবর্তী পর্যায়ের জন্য সিলেক্ট হয়েছেন। তবে পাঁচটি পর্বের জন্য দুই লাখ টাকা দিতে হবে। কারণ হিসেবে বলে, স্পনসররা আমাকে প্রোমোট করবে। আর এই প্রোমোট করার জন্যই টাকাটা লাগবে। আমি রেকর্ড করতে গিয়েছিলাম। কিন্তু রেকর্ডিং অন করার অ্যালার্ট আসার সঙ্গে সঙ্গে ওরা ফোনটা কেটে দেয়।’

‘এরপর আমি আমার একটা বন্ধুকে ফোন করি। সে বলে, ২০১৮ সালে ওর কাছে আড়াই হাজার টাকা চাওয়া হয়েছিল। ওর কাছে সোজাসুজি ফোন আসেনি। একজনের মাধ্যমে চাওয়া হয়েছিল।’, বলেন সুপ্রিয় নামের ওই ব্যক্তি।

তবে ফেক কল হওয়ার সম্ভাবনাও এড়িয়ে যাচ্ছেন না সুপ্রিয়। কিন্তু তিনি জানান, অনেকেই তাঁর এই পোস্টের পর মন্তব্যের বক্সে এসে, ইনবক্সে জানিয়েছেন, তাঁদের সঙ্গে ঘটেছে একই ঘটনা। সুপ্রিয়র আরও দাবি, কিছু মানুষ হুমকিও দিয়েছেন তাঁকে। যাদের মধ্যে নাকি রয়েছে জি বাংলার তারকারাও। তাই এই তরুণ মনে করেন, জি বাংলার উচিত তাঁর তোলা অভিযোগের জবাব দেওয়া। যদি তিনি মিথ্যাই হন, তাহলে এত লোক কীভাবে সহমত হচ্ছেন তাঁর সঙ্গে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

four − two =