৫ মিনিটেই চার্জ হবে এমন যুগান্তকারী ব্যাটারি আবিষ্কার

ব্যাটারি রসায়ন ও নকশায় নতুন উদ্ভাবনের ফলে এমন এক ব্যাটারি আসতে চলেছে যা চার্জ হবে মাত্র ৫ মিনিটে। বাজারে এ ধরনের যে কোনো ব্যাটারির চেয়ে দ্রুত এটি। পাশাপাশি, দীর্ঘদিন ব্যবহারেও এসব ব্যাটারির মানে কোনো হেরফের হবে না বলে প্রতিবেদনে লিখেছে ব্রিটিশ দৈনিক ইন্ডিপেন্ডেন্ট। গবেষকরা বলছেন, এ সাফল্য বিদ্যুচ্চালিত গাড়ির প্রসার বাড়ানোর পাশাপাশি দাম কমাতেও সাহায্য করবে। এ ছাড়া, প্রযুক্তি ব্যবহারের অন্যান্য টেকসই উপায়েরও বিকাশ ঘটাবে এ ব্যাটারি।

যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কভিত্তিক কর্নেল ইউনিভার্সিটির এক প্রকল্পে দেখা গেছে ‘ইন্ডিয়াম’ নামের একটি উপাদান ব্যাটারি দ্রুত চার্জ করে তা ধারণ করতে পারে। এ উপাদানটি বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ডিসপ্লে ও সৌর প্যানেলের আবরণ তৈরির কাজে ব্যবহার হয়ে থাকে। ‘ইন্ডিয়ামে’র একটি নির্দিষ্ট সংমিশ্রণ রয়েছে যা এটিকে দ্রুত চার্জ হতে দেয় ও সে চার্জ সহজে ক্ষয় হয় না।

বিজ্ঞানীরা পরামর্শ দিয়েছেন, নতুন এ আবিষ্কার ব্যাটারিগুলোকে আরও ছোট ও আরও দক্ষ করে তুলতে পারে, বিশেষ করে যখন রাস্তায় গাড়ি চার্জ করার মতো প্রযুক্তির সঙ্গে তুলনা করা হয়। এ পরামর্শ এসেছে “ফাস্ট-চার্জ, লং ডিউরেশন স্টোরেজ ইন লিথিয়াম ব্যাটারিজ” শীর্ষক এক গবেষণাপত্রে, যা “জুল” নামের বিজ্ঞান সাময়িকীতে প্রকাশিত হয়েছে।

তবে, গবেষকরা আরও বলেছেন, এতে আরও কাজ করতে হবে। উপাদান হিসাবে ইন্ডিয়াম যথেষ্টই ভারী । ফলে, ওজন কম ও একই বৈশিষ্ট্যযুক্ত অন্য উপাদান খুঁজে পাওয়া গেলে নতুন ব্যাটরির সম্ভাবনা আরও ভালো হতে পারে।

দ্রুত চার্জ হওয়া ব্যাটারি বিদ্যুচ্চালিত গাড়িসহ শিল্পক্ষেত্রের বিভিন্ন সেক্টরে বড় পরিবর্তন আনতে পারে। অনেক চালক ‘রেঞ্জ অ্যাংজাইটি’ বা পরিসীমা উদ্বেগে ভোগেন বা তাদের ব্যাটারির চার্জ কতক্ষণ টিকবে তা নিয়ে ভয়ে থাকেন বলে জানিয়েছেন।

‘রেঞ্জ অ্যাংজাইটি’ মানে হচ্ছে একটি গন্তব্যে পৌঁছানোর জন্য গাড়ির ব্যাটারিতে পর্যাপ্ত চার্জ আছে কি না বা পথে চার্জিং স্টেশন পাওয়া যাবে কি না তা নিয়ে ইভি মালিকদের শঙ্কা ও উদ্বেগ। কারণ হচ্ছে, এ ধরনের গাড়ি চার্জ করতে দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করতে হয়।

“চালিকা শক্তি হিসেবে যানবাহনে বিদ্যুৎ ব্যবহারের ক্ষেত্রে ব্যাটারির খরচ ও ক্ষমতা বা এ ধরনের অন্যান্য বাধার চেয়েও বড় অসুবিধা এই উদ্বেগ। আর আমরা যুক্তিসঙ্গত ইলেকট্রোড নকশার মাধ্যমে এটি দূর করার পথ চিহ্নিত করেছি।,” বলেছেন কর্নেল’স কলেজ ও ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ডিন ও অধ্যাপক লিনডেন। তিনি এ প্রকল্পটির দায়িত্বেও ছিলেন।

“আপনি যদি পাঁচ মিনিটের মধ্যে একটি ইভি ব্যাটারি চার্জ করতে পারেন, তাহলে আপনার ৪৮০ কিলোমিটার দূরত্বের জন্য যথেষ্ট বড় ব্যাটারি থাকার দরকার নেই। আপনি কম দূরত্ব যেতে পারে এমন ব্যাটারিই নিতে পারেন। এটি ইভির খরচ কমাবে ও ব্যবহার ব্যাপকভাবে বাড়াবে।”

চার্জিংয়ের গতি বাড়ানোর জন্য এ ধরনের বিভিন্ন প্রকল্প হাতে নেওয়া হচ্ছে বলে লিখেছে ইন্ডিপেন্ডেন্ট। কর্নেল ইউনিভার্সিটির নতুন গবেষণাটি এমন সময়ে এল যখন যুক্তরাষ্ট্রের ‘ডিপার্টমেন্ট অফ এনার্জি’-এর ‘ব্রুকহেভেন ন্যাশনাল ল্যাবরেটরি’র ইঞ্জিনিয়াররা আরেকটি উদ্ভাবন করেছেন যা ব্যাটারিতে চার্জ হওয়ার ক্ষমতা বাড়িয়ে দেয়।

গবেষকরা খুঁজে পেয়েছেন, ব্যাটারির একটি অংশে ‘সিজিয়াম নাইট্রেট’ নামের এক যৌগ যোগ করা ‘লিথিয়াম ধাতব ব্যাটারি’র চার্জের হারকে ব্যাপকভাবে বাড়িয়ে দেওয়ার পাশাপাশি ব্যাটারিটি অনেকদিন ভাল রাখে।এই সাফল্যের পেছনের দলটি হল ‘ব্যাটারি৫০০ কনসোর্টিয়াম’-এর অংশ। এটি বিভিন্ন ল্যাব ও বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি সম্মিলিত উদ্যোগ। তারা এমন ব্যাটারি তৈরি করতে চাইছেন যার শক্তির ঘনত্ব প্রতি কিলোগ্রামে ৫০০ ওয়াট-আওয়ার। এটি বর্তমানে বাজারে থাকা যেকোনো ব্যাটারির তুলনায় দ্বিগুণেরও বেশি।

তবে, এটি বর্তমানের ‘লিথিয়াম-আয়ন’ ব্যাটারি ব্যবহার করে সম্ভব হবে না। এর পরিবর্তে, বিজ্ঞানীদের ‘লিথিয়াম ধাতব’ ব্যাটারি ব্যবহার করতে হবে, যেগুলোর শক্তির ঘনত্ব অনেক বেশি। ইন্ডিপেন্ডেন্টের প্রতিবেদন অনুসারে, এতে কিছু সমস্যাও রয়েছে, যেমন ব্যাটারির দীর্ঘ জীবন বা দ্রুত চার্জ হওয়া বিকল্প দুটির একটি বাছাই করা।

বিডি নিউজ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

10 − 2 =