‘৮৩’ ছবির জন্য ১৫ কোটি টাকা পেয়েছেন কপিল ও তার সতীর্থরা

আশা করা হচ্ছে, বক্স অফিসে ঝড় তুলবে ১৯৮৩ সালে কপিলের দলের বিশ্বজয়ের কাহিনি ‘৮৩’। শুক্রবার মুক্তি পাবে ‘৮৩’সিনেমাটি। ছবিতে কপিলের ভূমিকায় রণবীর সিং তো বটেই, কপিলের সহযোদ্ধাদের ভূমিকায় চমকে দিয়েছেন বাকি অভিনেতারাও। আসলে কপিল দেব-সহ তার সেই দলের অনেকেই প্রভূত সাহায্য করেছেন কবীর খানের ইউনিটকে। উদ্দেশ্য, রুপালি পর্দায় যেন ফুটে ওঠে বিশ্বজয়ী ভারতের সাফল্যের নিখুঁত ছবি। তবে বিনামূল্যে নয়, এজন্য প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটারদের পারিশ্রমিকও দেওয়া হয়েছে।

জানা গিয়েছে, ছবিতে তাদের চরিত্রদের ব্যবহার হতে দেওয়ার জন্য মোটা অঙ্কের টাকা নিয়েছেন কপিল ও তার একদা সতীর্থরা। এক বিনোদন ওয়েবসাইটের দাবি, তাদের সব মিলিয়ে ১৫ কোটি টাকা দিয়েছেন ছবির নির্মাতারা। এর মধ্যে কপিল একাই পেয়েছেন ৫ কোটি টাকা।

ওই প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, ছবির পরিকল্পনা করতে গিয়েই প্রযোজক সংস্থা বুঝে গিয়েছিল সেই সময়ের ভারতীয় দলকে ফুটিয়ে তুলতে গেলে খেলোয়াড়দের ব্যক্তিগত স্মৃতিচারণ অসম্ভব মূল্যবান। এক সত্যি ঘটনাকে জ্যান্ত করে তুলতে গেলে চরিত্রগুলিকে রক্তমাংসের বানাতে হবে। আর সেজন্য দরকার ডিটেলিং। ক্যারিবিয়ান দৈত্যদের হারিয়ে কপিলের দলের বিশ্বজয়ের আবহ তৈরি করতে গেলে তাই আবশ্যক হয়ে পড়েছিল প্রাক্তন তারকাদের সাহচর্য। সেজন্য উপযুক্ত পারিশ্রমিক দিতেও তাই কার্পণ্য করেননি নির্মাতারা।

‘৮৩’ ছবিতে কপিল দেবের চরিত্রে নিজেকে মেলে ধরার জন্য রণবীর সিং নিজের পরিচিত ইমেজ ভেঙে বেরিয়ে এসেছেন। শুধু চেহারায় নয়, আলাদা করে ক্রিকেটের ট্রেনিং নিয়েছেন। কপিল দেব কীভাবে বল করতেন, কীভাবে ব্যাট করতেন সবটাই আত্মস্থ করেছেন রণবীর। কপিল দেবের বিখ্যাত নটরাজ শটকে হুবহু নকল করেছেন রণবীর। কেবল তিনিই নন, বিস্তর হোমওয়ার্ক করেছেন বাকি কুশীলবরাও। ছবিতে কপিল দেবের স্ত্রী রোমির চরিত্রে দেখা যাবে দীপিকা পাড়ুকোনকে। পর্দায় কপিল-রোমির রসায়ন কেমন ফোটান রণবীর-দীপিকা সেদিকেও চোখ থাকবে দর্শকদের।

সংবাদ প্রতিদিন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

15 + nine =