নুসরাত জানালেন, তার সন্তানের বাবা যশ

‘আমার ছেলের বাবা জানে বাবা কে’, সদ্যোজাত ঈশানকে নিয়ে মা নুসরাত জাহানের তৈরি এই ধোঁয়াশা কেটে গেল বুধবার। কলকাতা পুরসভার ওয়েবসাইটে দেখা গেল, ছেলের নাম ঈশান জে দাশগুপ্ত। বাবার নাম লেখা দেবাশিস দাশগুপ্ত ওরফে যশ! মায়ের নাম নুসরত জাহান রুহি। নুসরত তার ছেলে ঈশানের জন্ম সনদপত্রের জন্য যে যে তথ্য দিয়েছেন, তাতে বাবার নাম হিসেবে যশের নামই দেওয়া হয়েছে। তা ছাড়া, বাবার পদবীই ছেলের পদবী হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছে।

অনলাইনে ‘যশরত’-এর সদ্যোজাতের জন্ম সনদপত্রের রেজিস্ট্রেশন নম্বর ১৬২৩ বলে পুরসভা জানিয়েছে। আরও জানা গেছে, এ দিন রাত সাড়ে ৯টার পরে পুরসভার স্বাস্থ্য বিভাগ জন্ম সনদপত্রের ওয়েবসাইট আপডেট করতেই বেরিয়ে আসে সমস্ত তথ্য।

গত শনিবার যশকে নিয়ে অতিমারির প্রতিষেধক নিতে পুরসভায় এসে মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক চিকিৎসক সুব্রত রায়চৌধুরির থেকে পুত্রের জন্ম সনদপত্রের বাবার নামের জায়গায় ফাঁকা রাখা নিয়ে আইনি জটিলতার তথ্যও নাকি জেনে নেন নুসরাত।

নুসরতের অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার খবর প্রকাশ্যে আসার পরেই তার সন্তানের পিতৃপরিচয় সরাসরি অস্বীকার করেন সাংসদ-তারকার একদা সঙ্গী নিখিল জৈন। সেই সময়েই তিনি জানিয়েছিলেন, গত ছ’মাসেরও বেশি সময় তিনি আর নুসরাত বিচ্ছিন্ন। ফলে, এ বিষয়ে তিনি কিছুই জানেন না। এর পর নির্দিষ্ট সময়ে পুত্রসন্তানের জন্ম দেন নুসরাত। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে যশ জানিয়েছেন, তিনি এবং নুসরাত দু’জনে মিলেই ছেলের নাম রেখেছেন ঈশান। সেই নামের আদ্যক্ষরও ইংরেজি অক্ষর ‘ওয়াই’ দিয়ে শুরু। নামকরণ জানার পরেই ঈশানের মা-বাবা যে ‘যশরত’ সে বিষয়ে অনেকটাই নিশ্চিত হয়ে যান দুই পক্ষের সমস্ত অনুরাগী।

আনন্দবাজার

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

19 − 12 =