উরুগুয়েকে ১-০ গোলে হারিয়ে কোপা আমেরিকার ফাইনালে কলম্বিয়া

ফেবারিট উরুগুয়েকে ১-০ গোলে হারিয়ে ২৩ বছর পর প্রথমবারের মত কোপা আমেরিকার ফাইনাল নিশ্চিত করেছে ১০ জনের কলম্বিয়া। জেফারসন লারমার ৩৯ মিনিটের হেডে কলম্বিয়ার জয় নিশ্চিত হয়। আগামী রোববার মিয়ামির ফাইনালে তাদের প্রতিপক্ষ বর্তমান চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা।

শার্লটের ব্যাংক অব আমেরিকা স্টেডিয়াম ভর্তি দর্শকদের উপস্থিতিতে বিশৃঙ্খল এক সেমিফাইনাল পার করে শেষ পর্যন্ত ফাইনালের টিকেট পায় কলম্বিয়া। গ্যালারিতে সমর্থকদের মধ্যে যেমন উত্তেজনা বিরাজ করেছে তেমনি মাঠেও বেশ কিছু খেলোয়াড়কে বিভিন্ন সময় উত্তেজনা ছড়াতে দেখা গেছে। বিরতির ঠিক আগে মিডফিল্ডার ড্যানিয়েল মুনোজ দ্বিতীয় হলুদ কার্ড পেয়ে মাঠ ছাড়লে ১০ জনের দলে পরিনত হয় কলম্বিয়া। এরপর উরুগুয়ের একের পর এক চাপ সামলাতে হয়েছে কলম্বিয়াকে।

ম্যাচ শুরুর আগে উত্তর ক্যারোলিনা শহরের রাস্তায় রাস্তায় হলুদ জার্সিধারী উচ্ছসিত কলম্বিয়ান সমর্থকদের আনন্দ উল্লাস করতে দেখা গেছে। ম্যাচ শেষে এই উল্লাস ছড়িয়ে পড়ে আরো কয়েকগুন।  ৭৪,৮০০ ধারণক্ষমতা সম্পন্ন শার্লট স্টেডিয়ামটি যেন বোগোটার হোম গ্রাউন্ডে পরিনত হয়। ভেন্যুর চারদিক থেকে তখন উরুগুইয়ান সমর্থকরাও মাঠে প্রবেশের জন্য জোড় চেস্টা চালায়।

এই পরিবেশ অবশ্য অনুমেয়ই ছিল। কলম্বিয়া ম্যাচের শুরুটা শক্তি ভাবেই করেছিল। লিভারপুল উইঙ্গার লুইস দিয়াস প্রায়ই বামদিক থেকে কিছু ক্রস ডি বক্সের মধ্যে করেছে। এর মধ্যে তার একটি ক্রসে মুনোজের হেড অল্পের জন্য পোস্টের বাইরে চলে যায়। উরুগুয়ে স্বভাবসুলভ ভাবেই কাউন্টার এ্যাটাক থেকে বিপদজনক হয়ে ওঠে। লিভারপুল তারকা ডারউইন নুনেজ গোলের দেখা প্রায় পেয়েই গিয়েছিলেন। রডরিগো বেনটানকারের চতুর পাসে নুনেজের শট গোলের ঠিকানা খুঁজে পায়নি। ম্যাক্সিমিলিয়ানো আরাউজোর আরো একটি এ্যাসিস্ট থেকে নুনেজ সুযোগ নষ্ট করেন।

বিপরীতে কলম্বিয়াও বেশ কিছু সুযোগ হাতছাড়া করেছে। হামেস রড্রিগুয়েজের কার্লিং ক্রসে জন কোরডোবার জেড টার্গেটে পৌঁছায়নি। ৩৯ মিনিটে রড্রিগুয়েজের কর্ণার থেকে হোসে মারিয়া জিমিনেজের মাথায় উপর দিয়ে লারমার দুর্দান্ত হেডে এগিয়ে যায় কলম্বিয়া। অভিজ্ঞ রড্রিগুয়েজের এটি টুর্নামেন্টের ষষ্ঠ এ্যাসিস্ট। কোপার এক আসরে সর্বোচ্চ এ্যাসিস্টেও দিক থেকে ২০২১ সালে লিওনেল মেসিকে এর মাধ্যমে ছাড়িয়ে গেছেন সাবেক এই রিয়াল মাদ্রিদ তারকা। রিচার্ড রিওসের শট দারুনভাবে রুখে দেন উরুগুয়াইন গোলরক্ষক সার্জিং রোশে। বিরতির ঠিক আগে মুনোজ আর মাথা ঠান্ডা রাখতে পারেননি। ম্যানুয়ের উগার্তেকে ফাউলের অপরাধে দ্বিতীয় হলুদ কার্ডের কারনে তাকে মাঠ ছাড়তে হয়েছে।

ম্যাচের বাকি সময় কলম্বিয়াকে ১০ জন নিয়ে প্রতিরোধ করতে হয়েছে যা মোটেই সহজ ছিল না। ৬২ মিসিটে কলম্বিয়ান কোচ নেস্তর লোরেঞ্জো রড্রিগুয়েজকে মাঠ থেকে উঠিয়ে নেন। উরুগুয়ে এরপর কিছুটা আক্রমনের ধার বাড়ায়। নিকোলাস ডি লা ক্রুস লো ড্রাইভে সুবিধা করতে পারেননি। বদলী খোলয়াড় লুইস সুয়ারেজের শট পোস্টের বাইরে দিয়ে চলে যায়। ফেডেরিকো ভালভার্দের গোলের ভাল সুযোগ হাতছাড়া করেন। ভালভার্দের একটি শট লাইনের উপর থেকে ক্লিয়ার না হলেও তখনই সমতায় ফিরতে পারতো উরুগুয়ে।

বাসস

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

five × four =