টি ২০ বিশ্বকাপ ২০২৪: দাপুটে জয়ে ইংল্যান্ডকে ছিটকে ফেলে ফাইনালে ভারত

সালেক সুফী

আশা ছিল ভারত-ইংল্যান্ডের মধ্যে অনুষ্ঠিত সেমি ফাইনালটিতে হাড্ডা হাড্ডা লড়াই হবে। কিন্তু হয়নি আদৌও। প্রথমে ব্যাটিং করা ভারত সর্বকালের অন্যতম সেরা ওপেনিং ব্যাটসম্যান রোহিত শর্মার (৩৯ বলে করা ৫৭) এবং উদীয়মান নবীন তারকা সূর্য কুমার যাদবের (৪৭) রানের সুবাদে ১৭১/৭ করে। জবাবে কুলদীপ যাদব (৩/১৯), আকসার প্যাটেলের  (৩/২৩) ঘূর্ণি বল এবং জাসপ্রিত বুমরার (২/১২) বিধ্বংসী বোলিংয়ে ১০৩ রানে গুটিয়ে যায় ইংরেজ সিংহ। ৬৮ রানের বিশাল ব্যাবধানে একপেশে জয় নিয়ে ফাইনালে রোহিত-কোহলির ভারত।

টুর্নামেন্ট জুড়ে প্রবল প্রতাপে খেলতে থাকা টিম ইন্ডিয়া সেমি ফাইনালে শক্তিশালী ইংল্যান্ডকে হারিয়ে ফাইনালে উঠেছে। ২৯ তারিখে সর্বজয়ী ভারত খেলবে ওপর অপরাজিত দল দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে। ভারতে অনুষ্ঠিত বিগত ৫০ ওভারের বিশ্বকাপের ফাইনালের মত শেষ পরীক্ষায় ব্যার্থ নাহলে এবারে ভারতের বিশ্ব কাপ জয় অনেকটাই নিশ্চিত বলা যায়।

এবারের টুর্নামেন্টে বরাবরের মতোই ফেভারিট দলগুলোর শীর্ষে ছিল ভারত। বিভিন্ন পর্যায়ে অন্যান্য ফেভারিট দল অস্ট্রেলিয়া, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, নিউ জিল্যান্ড, পাকিস্তান ঝরে পড়ে। ভারত কিন্তু প্রতিটি ম্যাচ দাপটের সঙ্গে জিতেছে।  অন্যদিকে ফাইনালে উঠে আসা দক্ষিণ আফ্রিকা কিন্তু অনেক ম্যাচ জিতেছে হাড্ডা হাড্ডি লড়াই করে। দেখতে হবে ফাইনালে দক্ষিণ আফ্রিকার তুখোড় ফর্মে থাকা বোলাররা কতটা বাধা সৃষ্টি করতে পারে ফর্মে থাকা ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের উপর। সেই সঙ্গে দেখতে হবে দক্ষিণ আফ্রিকার কুইন্টন ডি কক, আদ্রিয়ান মারকরাম, ডেভিড মিলার কিভাবে সামাল দেয় জাসপ্রিত বুমরা, কুলদীপ যাদব, আকসার প্যাটেলদের।

জানি ক্রিকেট বিশেষত সক্ষিপ্ত ফরম্যাটের ম্যাচ নিয়ে নিশ্চিত করে আগাম কিছু বলা সুবিবেচনা প্রসূত নয়। তবে টুর্নামেন্টের গতিধারা প্রমান করছে ভারত হয়ত এবারের বিশ্বকাপ জিতে নিবে। তবে যাই হোক খেলাটিতে যেন হাড্ডা হাড্ডি লড়াই হয়। ভারতকে যেন আইসিসির বদান্যতায় শিরোপা জয়ী হতে না হয়।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

fourteen − eight =