স্রোতের বিপরীত ধারার সেমি ফাইনাল দেখলাম

সালেক সুফী

টুর্নামেন্ট জুড়ে দাপুটে ক্রিকেট খেলে বিশ্বজোড়া ক্রিকেট প্রেমিকদের হৃদয় মন জয় করেছিল আফগানিস্তান। অন্যদিকে অধিকাংশ ম্যাচে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই করেই সেমিফাইনালে উঠেছে চিরদিনের চোকার পরিচয়ে পরিচিত দক্ষিণ আফ্রিকা।  স্বভাবতই সবার অনুমান ছিল লড়াই করবে আফগানিস্তান। বৃহস্পতিবার সকালে খেলা শুরু হতেই দেখলাম ভাটির টানে ভেসে গেলো আফগানিস্তান।

মার্কো জেনসেন (৩/১৬), কাগিসো রাবাদা (২/১৪), এনরিক নর্তজে (২/৭) আগ্রাসী বোলিং মোকাবিলায় ৯.৩ ওভারেই ৫০ রানে ৭ উইকেট হারিয়ে ফেলে আফগানিস্তান। প্রোটিয়ান পেস বোলারদের প্রলয়যজ্ঞে  শামসি (৩/৬) যোগ হলে ১১.৫ ওভারে ৫৬ রানে গুটিয়ে যায় আফগানিস্তান। মামুলি এই স্কোর ১ উইকেট হারিয়ে ৮.৫ ওভারে ৬০ রান করে হেসে খেলে জিতে নেয় দক্ষিণ আফ্রিকা।

শেষ হয় এবারের টি২০ বিশ্বকাপে আফগানিস্তান রূপকথা। তবে এভাবে যুদ্ধ না করে শর্তহীন আত্মসমর্পণ আফগান ঐতিহ্যের সঙ্গে মানানসই হলো না। অন্যদিকে টুর্নামেন্ট জুড়ে অপরাজিত দক্ষিণ আফ্রিকার জন্য এটি বিশ্বকাপ আসরে প্রথম সেমি ফাইনাল জয়। অপেক্ষা আজ অপর সেমি ফাইনালে ভারত-ইংল্যান্ড খেলার পর বিজয়ী দলের।

তাহলে কি পরিশ্রান্ত আফগান দল যুদ্ধ করার সামর্থ্য হারিয়ে ফেলেছিলো। টুর্নামেন্ট জুড়ে ভালো ব্যাটিং করা রামানুল্লাহ গুরবাজ, ইব্রাহীম  জাদরান ব্যর্থ হবার পর তাসের ঘরের মত ঝরে পড়ে।  এতো জমজমাট টুর্নামেন্টের এতো ম্যাড়ম্যাড়ে ম্যাচ কেউ আশা করেনি।

আফগানিস্তান দল নিয়ে অনেকেই আশা করেছিলেন। কিন্তু সেমি ফাইনালের সীমানা পেরিয়ে ফাইনালে যাবে সেটি আশা করা হয়ত দুরাশা।  টুর্নামেন্ট জুড়ে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পর প্রতিটি ম্যাচ জয় করা দক্ষিণ আফ্রিকা যোগ্যতার ভিত্তিতেই প্রথমবারের মত ফাইনালে উঠেছে। অপেক্ষা এখন ভারত-ইংল্যান্ড ম্যাচের বিজয়ী দলের।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

fifteen − three =