ইউক্রেন নিয়ে রুশ ও মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রীর ফোনালাপ

রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রী আন্দ্রেই বেলোসভ এবং মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন মঙ্গলবার ইউক্রেনের সংঘাত নিয়ে ফোনে আলোচনা করেছেন। মস্কোর প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এ কথা জানিয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্র ইউক্রেনের অন্যতম কট্টর সামরিক সমর্থক, বিলিয়ন ডলার মূল্যের সহায়তা প্রদান করেছে এবং রাশিয়ার এর নিন্দা জানিয়ে আসছে এবং ওয়াশিংটনকে ‘সরাসরি শত্রুতায় জড়িত’ বলে অভিযুক্ত করেছে।

রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রনালয় এক বিবৃতিতে বলেছে, বেলোসভ এবং অস্টিন ‘ইউক্রেনের ঘিরে সার্বিক পরিস্থিতি সম্পর্কে মত বিনিময় করেছেন’। কথোপকথনটি ‘আমেরিকান পক্ষের উদ্যোগে’ হয়েছিল বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করেছে।

‘আন্দ্রেই বেলোসভ ইউক্রেনের সশস্ত্র বাহিনীতে মার্কিন অস্ত্রের চলমান সরবরাহের সাথে পরিস্থিতির আরও অবনতির বিপদের দিকে ইঙ্গিত করে বলেছেন, এই পরিস্থিতি অব্যাহত রয়েছে। ‘অন্যান্য বিষয় নিয়েও আলোচনা হয়েছে।’

পেন্টাগনের মুখপাত্র মেজর জেনারেল প্যাট রাইডারও এক বিবৃতিতে বলেছেন, অস্টিন ‘ইউক্রেনের বিরুদ্ধে রাশিয়ার চলমান যুদ্ধের মধ্যে যোগাযোগের লাইন বজায় রাখার গুরুত্বের উপর জোর দিয়েছেন’। তিনি বলেন, এটি মে মাসে রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ হওয়া বেলোসভের সাথে অস্টিনের প্রথম কল ছিল।

ইউক্রেনের জন্য চলমান সামরিক সহায়তার জন্য রাশিয়া মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিন্দা করেছে এবং ওয়াশিংটন সম্প্রতি কিয়েভকে খরকিভ শহরের কাছে রাশিয়ার কিছু অংশে দূরপাল্লার মার্কিন অস্ত্র ব্যবহার করার অনুমতি দিয়েছে।

সোমবার, ক্রেমলিন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে ‘পরিণাম’ সম্পর্কে সতর্ক করেছিল এবং মস্কো বলেছিল যে ক্রিমিয়াতে মার্কিন ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে ইউক্রেনের হামলায় চারজন নিহত হওয়ার পরে তার রাষ্ট্রদূতকে তলব করেছে। রাইডার সেই সময় বলেছিলেন, ইউক্রেনীয়রা ‘তাদের নিজস্ব সিদ্ধান্ত নেয়’।

এদিকে, স্টেট ডিপার্টমেন্টের মুখপাত্র ম্যাথু মিলার, এই যুদ্ধের জন্য রাশিয়াকে দায়ী করেছেন এবং এই বিষয়ে বিশ্বের বেশিরভাগ দেশের অবস্থান পুনর্ব্যক্ত করে বলেছেন, ২০১৪ সালে মস্কো একতরফাভাবে ক্রিমিয়াকে সংযুক্ত করেছে,যা ইউক্রেনের অংশ। ইউক্রেনে পশ্চিমা অস্ত্রের চালান মস্কোর জন্য ক্রমবর্ধমান ক্ষোভের বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

বাসস

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

seven + seventeen =