‘টাইটানিক’, ‘অ্যাভাটার’ সিনেমা প্রযোজক ল্যান্ডাউ মারা গেছেন

‘টাইটানিক’, ‘অ্যাভাটার’সহ অনেক কালজয়ী সিনেমার প্রযোজক জন ল্যান্ডাউ মারা গেছেন। তার বয়স হয়েছিল ৬৩ বছর। তিনি প্রখ্যাত পরিচালক জেমস ক্যামেরনের সঙ্গে জুটি বেঁধে সর্বকালের সবচেয়ে বড় তিনটি ব্লকবাস্টার ছবি নির্মাণ করেছিলেন। ১৯৯৭ সালে ‘টাইটানিক’ দিয়ে সেরা ছবির অস্কার জেতেন জন ল্যান্ডাউ।

ল্যান্ডাউ ও ক্যামেরনের পার্টনারশিপ ‘অ্যাভাটার’ এবং এর সিক্যুয়েল ‘অ্যাভাটার: দ্য ওয়ে অব ওয়াটার’ সহ সিনেমার ইতিহাসের অন্যতম বড় ব্লকবাস্টার উপহার দিয়েছে দর্শকদের।

ল্যান্ডাউ হলিউডের প্রযোজক এলি এবং এডি ল্যান্ডাউ-এর সন্তান। তিনি অল্প সময়ের জন্য টোয়েন্টিন্থ সেঞ্চুরি ফক্স চলচ্চিত্র প্রযোজনা সংস্থায় একজন নির্বাহী হিসেবে কাজ করেছেন। ‘দ্য লাস্ট অব দ্য মোহিকানস’ এবং ‘ডাই হার্ড টু’ সহ বেশকইয়েকটি চলচ্চিত্রে তিনি তত্ত্বাবধান করেছিলেন।

ল্যান্ডউয়ের মৃত্যুর খবরের পরে ক্যামেরন হলিউড রিপোর্টার্সকে বলেছেন, একজন মহান প্রযোজক এবং একজন মহান মানুষ আমাদের ছেড়ে চলে গেলেন। জন ল্যান্ডাউ সিনেমার ব্যাপারে স্বপ্নচারী ছিলেন। তিনি বিশ্বাস করতেন চলচ্চিত্র হল মানব শিল্পের চূড়ান্ত রূপ এবং চলচ্চিত্র নির্মাণ করতে হলে প্রথমে নিজেকে মানুষ হতে হবে।

দুনিয়া জুড়ে খ্যাতি হয়তো অনেক ছবিই পেয়েছে, কিন্তু ‘টাইটানিক’-এর মতো মানুষের হৃদয়ে গেথে ছবির সংখ্যা কয়টা? এখনো সাধারন দর্শক থেকে শুরু করে বিভিন্ন দেশের তারকারাও বলে থাকেন, তাদের পছন্দের সিনেমার শীর্ষে ‘টাইটানিক’।

ট্রাডেজিক প্রেমের গল্প নিয়ে জেমস ক্যামেরনের ছবিটিই হয়তো হতো না যদি জন ল্যান্ডাউ না থাকতেন! কারণ তিনিই ছবিটির পেছনে সে সময়ের অনুপাতে কাড়ি কাড়ি টাকা ঢেলেছিলেন। তিনিই ‘টাইটানিক’ ছবির প্রযোজক। জন ল্যান্ডাউ সেরা প্রযোজক হিসেবে অস্কারও জয় করেছেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

seventeen + fourteen =