‘এমবাপ্পেকে বদলী বেঞ্চে রাখার সিদ্ধান্ত সঠিক ছিল’

নেদারল্যান্ডসের সাথে গোলশুন্য ড্রয়ের ম্যাচটিতে কিলিয়ান এমবাপ্পেকে তড়িঘড়ি করে মাঠে নামানোটা ঝুঁকি হতো বলেই মনে করেন ফ্রান্সের কোচ দিদিয়ের দেশ্যম। মাত্র দুইদিন আগে নাক ভেঙ্গে যাওয়ায় কাল পুরো ম্যাচেই বদলী বেঞ্চে ছিলেন ফ্রান্সের অধিনায়ক।

যদিও ম্যাচটিতে জিততে পারলে এক ম্যাচ হাতে রেখেই ফ্রান্সের ইউরো চ্যাম্পিয়নশীপের শেষ ষোল নিশ্চিত হয়ে যেত। কিন্তু তারপরও দলের সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য খেলোয়াড়কে নিয়ে কোন ধরনের ঝুঁকি নিতে চাননি দেশ্যম। ফরাসি কোচ বিশ্বাস করেন তার এই সিদ্ধান্ত হয়তো নক আউট পর্বে ম্যাচের ভাগ্য গড়ে দিতে পারে। যদিও তিনি আশা করছেন পোল্যান্ডের বিপক্ষে মঙ্গলবার গ্রুপের শেষ ম্যাচে এমাবাপ্পে ফিট হয়ে দলে ফিরবেন।

এ প্রসঙ্গে দেশ্যম বলেন, ‘ সে সুস্থ হয়ে উঠছে, প্রতিদিনই অবস্থার উন্নতি হচ্ছে। এটা যদি আজকে ভাগ্য নির্ধারনী ম্যাচ হতো তবে আমি হয়তো তাকে খেলানো নিয়ে দ্বিতীয়বার চিন্তা করতাম। আমরা এই ম্যাচ থেকে এক পয়েন্ট অর্জন করেছি, এটাই গুরুত্বপূর্ণ। দেখা যাক পরবর্তীতে কি হয়। সে কারনেই আমি মনে করি তাকে বেঞ্চে বসিয়ে রাখা বুদ্ধিমানের কাজ হয়েছে।’

এমবাপ্পের অনুপস্থিতিতে কাল দলকে নেতৃত্ব দিয়েছেন অভিজ্ঞ স্ট্রাইকার আঁতোয়ান গ্রীজম্যান। যদিও ম্যাচে তার দুটি গোলের সেরা সুযোগ নষ্ট না হলে ফ্রান্সের জন্য পুরো চিত্রটা হয়তো ভিন্ন হতে পারতো। অবশ্য  দুই ম্যাচে চার পয়েন্ট নিয়ে নক আউট পর্বের পথে এক পা দিয়ে রেখেছে ফেবারিট ফ্রান্স।

সোমবার প্রথম ম্যাচে অস্ট্রিয়ার বিপক্ষে ১-০ গোলের ম্যাচটি থেকে মাত্র একটি পরিবর্তন করে কাল দল মাঠে নামিয়েছিলেন দেশ্যম। এমবাপ্পের স্থানে কাল দলে ছিলেন অরেলিয়নে টিচুয়ামেনি। মধ্য মাঠে একজন বেশী খেলোয়াড় দিয়ে ডাচদের আক্রমনকে রুখতে চেয়েছিলেন দেশ্যম। যদিও নিজেদের সুযোগগুলো কাজে না লাগানোর কারনে কাল জয়ী হতে পারেনি ফ্রান্স। দেশ্যম বলেন, ‘আমি সব সময়ই সেরা দল বেছে নেবার চেষ্টা করি। যতটা সম্ভব দলে ভারসাম্য বজায় রাখার লক্ষ্য আমার সবসময়ই থাকে। পাঁচ থেকে ছয়টি সুযোগ কাল আমরা হাতছাড়া করেছি।

বাসস

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

five × 4 =