টি২০ বিশ্বকাপ: বাংলাদেশের প্রয়োজন স্মার্ট ক্রিকেট

সালেক সুফী

স্মার্ট ক্রিকেট বাংলাদেশকে শুধু দ্বিতীয় রাউন্ড নয় টুর্নামেন্টের গভীরে নিয়ে যাবে। তবে সেটি নিশ্চিত হবে আজ বাংলাদেশ যখন নেদারল্যান্ডের মুখোমুখি হবে আজ রাতে কিংসটাউনে।  নিউ ইয়র্কে দক্ষিণ আফ্রিকার সংগে তুমুল প্রতিদ্বন্দ্বিতার পর জয়ের পথে থাকা ম্যাচটি হেরে না গেলে বাংলাদেশ আজ অনেক স্বস্তিতে খেলতো। ওয়েস্ট ইন্ডিজের উইকেট এবং পরিবেশ নেদারল্যান্ড থেকে বাংলাদেশকেই সহায়তা করার কথা। কিন্তু ফ্লাইট বিলম্ব এবং ধকল কাটিয়ে স্মার্ট ক্রিকেট খেলতে হবে বাংলাদেশকে।

বোলিং, ফিল্ডিং নিয়ে খুব একটা শংকা নেই কিন্তু ভাবাচ্ছে বাংলাদেশের নড়বড়ে টপ অর্ডার। এক, দুই, তিন সবাই অনিশ্চিত। সাকিব আল হাসানের ক্রিকেটে গোধূলি লগ্ন দৃশ্যমান।  দেখে মনে হচ্ছে অচেনা অপরিচিত একসময়ের বিশ্বসেরা অল  রাউন্ডার। তাওহীদ হৃদয় এবং মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ছাড়া কোন ব্যাটসম্যান ছন্দে নেই। আজ প্রয়োজন হলে ব্যাটিং অর্ডার পরিবর্তন করে নীরব ঘাতক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদকে ৩ নম্বরে খেলানো যেতে পারে।

অধিনায়ক নাজমুল শান্ত আস্থাহীন হয়ে নিজেকে হারিয়ে খুঁজছে।  আজ টস জয় করে প্রথম ব্যাটিং করলে বাংলাদেশকে ১৫০-১৬০ করতে হবে। সেই ক্ষেত্রে তানজিদ তামিম, লিটন দাসের পর রিয়াদ, হৃদয়, শান্ত, সাকিব, জাকের, রিশাদ হতে পারে ব্যাটিং অর্ডার। টি২০ মাত্র ১২০ বলের খেলা।  দলের ফর্মে থাকা সেরা ব্যাটসম্যানদের বেশি বল খেলার সুযোগ দিতে হবে।

আর যদি বাংলাদেশ প্রথম বোলিং করে নেদারল্যান্ডস দলকে ১২০-১৩০ রানে সীমিত না রাখার কারণ দেখি না। তাসকিন, তানজিম, মুস্তাফিজ, রিশাদ অবশ্যই সাঁড়াশি আক্রমণ চালিয়ে ধস নামাতে সক্ষম। অন্তত আজকের ম্যাচটিতে সাকিব হয়ত বল হাতে নিজেকে ফিরে পাবে।

বাংলাদেশ আজ জিতলে সৃষ্ট মোমেন্টামের ধারাবাহিকতায় নেপালের বিরুদ্ধে জয়ী হবে। আর বাংলাদেশ যদি গ্রুপ অফ এইটে উঠে যায় তাহলে যেকোন দলের জন্যই মাথাব্যাথার কারণ হলে দাঁড়াতে পারে। কিন্তু সব কথার শেষ কথা আজ শুরু থেকে শেষ অবধি স্মার্ট ক্রিকেট খেলে ম্যাচ জিততে হবে। বর্তমান পরিস্থিতিতে বাংলাদেশের বোলিং টুর্নামেন্টে দ্যুতি ছড়িয়েছে।  এখন ব্যাটসম্যানরা জ্বলে ওঠার সময়। তাহলেই বৃহস্পতি এসে লক্ষ্মী বেশে ধরা দেবে।

আমার দৃষ্টিতে আজকের একাদশ

লিটন কুমার দাস, তানজিদ হাসান তামিম, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, তাওহীদ হৃদয়, নাজমুল হাসান শান্ত, সাকিব আল হাসান, জাকের আলী অনিক, রিশাদ হোসেন, তাসকিন আহমেদ, তানজিম হাসান সাকিব, মুস্তাফিজুর রহমান।

শুরুতেই আঘাত হানতে পারে নতুন বলে তাসকিন অথবা তানজিম। মুস্তাফিজ কৃপণ বোলিং করছে।  ম্যাচের পর ম্যাচ পরিণত হচ্ছে রিশাদ। মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ অভিজ্ঞতা কাজে লাগাচ্ছে। বাকি শুধু সাকিবের আবারো জ্বলে ওঠা। সবদিন সবার সমান যায় না। আজ হয়ত সাকিবের দিন আসতেও পারে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

eighteen − seven =